নিরাপত্তাসহ বেশ কয়েকটি বিষয় নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মার্ক এসপারের সঙ্গে বৈঠক করেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। একটি সূত্র বলছে ভারত ও মার্কিন দুই দেশের মধ্যেই কৌশলগত গুরুত্বের পাশাপাশি সামরিক ও আন্তর্জাতিক ডোমেনগুলি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।  পূর্ব লাদাখ সেক্টরে চিনের সঙ্গে চলমান বিবাদের মধ্যে আমেরিকা একাধিকবার ভারতের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছে। ভারত-চিন উত্তপ্ত সীমান্ত আবহে এই বৈঠক যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলেও মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল। 

কাশ্মীরে এনকাউন্টারের সময় আত্মসমর্পণ বিটেক ছাত্র জঙ্গির, মাসখানেক আগে নাম লিখিয়েছিল জঙ্গি দলে

করোনাভাইরাসের দৈনিক সংক্রমণে রেকর্ড স্বস্তি দেশে, উদ্বেগ বাড়াচ্ছে কেরল আর বাংলা

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মধ্যেই চিন বিরোধী বার্তা প্রচারের জন্য ট্রাম্প প্রশাসন দক্ষিণ এশিয়ার চারটি দেশ সফরের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। আর সেই কর্মসূচির অন্তর্গত প্রথম দেশ হল  ভারত। পম্পেয় ও এসপার ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং ও বিদেশ মন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে টু প্লাস টু বৈঠকেও করেছেন। আগামী দিনে শ্রীলঙ্কা, ইন্দোনেশিয়া আর মালদ্বীপ সফর করবেন তাঁরা। মার্কিন প্রতিবেদন অনুসারে পম্পেয় মনে করেছন চিন বিরোধীতায় এই সংশ্লিষ্ট দেশগুলিকে আমেরিকাকে সাহায্য করবে। 


জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও আর প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মার্ক এসপারের সঙ্গে মঙ্গলবার সাউথ ব্লকেরস মার্কিন প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন। নিরাপদ, স্থিতিশীল নিয়ম ভিত্তিক আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক সুরক্ষা পরিবেশ নিয়ে আলোচনা হচ্ছে উভয়ের মধ্যে। নিরাপত্তা বাড়াতে প্রয়োজনীয় উপাদানগুলি নিয়ে কথা হয়েছে।