ভারতে ক্রমেই বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। একের পর এক আক্রান্তের খবর উঠে আসছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। শেষ কয়েকদিনে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির হার বেড়ে যাওয়ায় সকলেরই কপালে চিন্তার ভাঁজ। শনিবার সকাল পর্যন্ত করোনার জেরে ভারতের বুকে আক্রান্তে সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭১। পরিস্থিতি সামাল দিতে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বিভিন্ন বেসরকারি ও সরকারি সংস্থার পক্ষ থেকে।

বন্ধ রাখা হয়েছে সিনেমাহল, পার্ক, বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান, বন্ধ রাখা হয়েছে বালাজি মন্দির। অধিকাংশ অফিস এখন বাড়ি থেকেই কাজ করাচ্ছেন। সংক্রমণ ঠেকাতে বাইরে কম বেরনোর পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে সকলকে। বজায় রাখতে হবে নূন্যতম দুরত্ব। সেই দিকে নজর রেখেই এবার ওলা বন্ধ করল শেয়ার সার্ভস। চার সিটের গাড়িতে পেছনে তিনজনকে বসতে হয়। যার ফলে সংক্রমণ ছড়াতে পারে। 

আরও পড়ুনঃ পার্টিতে করোনা আক্রান্ত কণিকার সঙ্গে ছেলেকে নিয়ে ছিলেন বসুন্ধরা, আতঙ্কে স্বেচ্ছাবন্দি, তোপ ডেরেকের

আরও পড়ুনঃ দুষ্মন্তের পাশে বসে, সরকারকে দুষে স্বেচ্ছায় কোয়ারান্টাইনে তৃণমূলের ডেরেক

সেই বিষয়ের কথা মাথায় রেখেই শনিবার থেকে বন্ধ করা হল ওলায় শেয়ার পরিষেবা। পাশাপাশি বাতিল করে দেওয়া হয়েছে ৩০০০ ট্রেন। পাশাপাশি ১০০০ বিমানও বাতিল। রবিবার জনতা কার্ফুর ডাক দেওয়া হয়েছে। যার ফলে শনিবার রাত থেকেই বন্ধ থাকতে ট্রেন চলাচল। পাশাপাশি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরনোতে জারি করা হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। জনতা কার্ফুর জন্য ব্যহত হবে মেট্রো পরিষেবাও।