কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ও তাঁর দল কংগ্রেসকে এবার কিছুটা আশার আলো দেখাতে পারবে পাকিস্তান। ভারতীয় সেনা জওয়ান, ভারত সরকার ও ভারতের নাগরিকদের  তারা বিশ্বাস করেন না। অভিনন্দন বর্তমান ইস্যুতে বৃহস্পতিবার এমনই মন্তব্য করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে জেপি নাড্ডা বলেন কংগ্রেস রাজপুত্র কোনও ভারতীয়কে বিশ্বাস করেন না। সে আমাদের সেনাবাহিনী , আমাদের সরকার, আমাদের নাগরিক যেই হোক। সুতরাং এখান তার সবথেকে বিশ্বস্ত দেশ পাকিস্তানের তাঁকে কিছুটা আশার আলো দেখাতে পারবে। এক বার্তা দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি পাকিস্তানের সংসদে পাকিস্তান মুসলিম লিগ-এন এর দেওয়া ভাষণের ভিডিওর কিছু অংশ পোস্ট করেন। 


পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানের বিরোধী দলের নেতা আয়াজ সাদিক অভিযোগ করেছিলেন, ভারতের কাছে মাথা নত করেছে ইমরান খান প্রশাসন। তিনি বলেন ২০১৯ সালে অভিনন্দন বর্তমানকে যখন পাকিস্তানে আটক করা হয়েছিল তখন একটি বৈঠক হয়েছিল। আর সেই বৈঠকে উপস্থিত হতে চাননি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেই বৈঠকে তিনি হাজির ছিলেন। পাক বিদেশমন্ত্রী কুরেশির উপস্থিতিতে সৈই  বৈঠক হয়েছিল। সেখানে যখন পাক সেনা বাহিনীর প্রধান বাহিনীর প্রধান বাজওয়া আসেন, তখন তিনি রীতিমত কাঁপছিলেন। তাঁর ঘামতেও দেখেছিলেন বলেও দাবি করেছেন সাদিক। তিনি আরও বলেন অভিনন্দনকে না ছাড়লে ভারত রাত ৯টার মধ্যেই পাকিস্তানকে আক্রমণ করবে এই কথা শুনে ভয় পেয়েছিল ইমরান খানের প্রশাসন। আর ভয় পেয়েই অভিনন্দনকে মুক্তি দিয়েছিল পাক সরকার। বিজেপি সাদিকের এই বক্তব্যকেই রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছে। 


২০১৯ সালে কাশ্মীরের পুলওয়ামা হামলার পরই পাকিস্তানে এয়ার স্ট্রাইক চালিয়েছিল ভারত। সেই সময় জম্মু ও কাশ্মীর সংলগ্ন বেশ কয়েকটি জঙ্গি ঘাঁটি ভারত ধ্বংস করে দিয়েছিল বলে দাবি করা হয়েছিল প্রশাসনের তরফ থেকে।  একই দাবি করেছিলেন বিজেপি নেতারাও। ভারতের সাধারণ নির্বাচনের আগে পুলওয়ামা হামলা ও পাকিস্তানের এয়ার স্ট্রাইককেই হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছিল বিজেপি। সেইসময় কিছুটা কোনঠাসা হয়ে পড়েছিল কংগ্রেস। তারপরই রাহুল গান্ধী সরব হয়েছিলেন। পাকিস্তানে জঙ্গি ঘাঁটি উড়িয়ে দেওয়ার প্রমাণ দাবি করেছিলেন। তারপর থেকেই বিজেপি নিশানা করে রাহুল গান্ধীকে। বারবারই অভিযোগ করেছে রাহুল গান্ধী ভারতের ও ভারতের সেনা জওয়ানদের সাফল্যে খুশি হতে পারেন না। পাকিস্তানের ওপরই বারবার ভরসা রেখেছেন তিনি। এদিনও তার ব্যতিক্রম হয়নি।