করোনা সংকট মোকাবিলায় লকডাউন জারি করা হয়েছিল গোটা দেশ জুড়়েই। এই অবস্থায় চরম সংকটে পড়েছিলে দেশের অভিবাসী শ্রমিক ও কৃষকরা। কারণ কাজ না থাকায় দিনমজুর, শ্রমিক ও কৃষকদের দুবেলা খাবারের জন্য স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার ওপরই নির্ভর থাকতে হয়েছে। এই অবস্থায় কখনও খাবার পেয়েছেন তাঁরা, কখনও আবার না খেয়েই থাকতে হয়েছে তাঁদের। অভিবাসী শ্রমিক আর দিনমজুরদের যাতে এই সংকটের মধ্যে আর না পড়তে হয় তারজন্য 'এক দেশ এক রেশন কার্ড' এই নীতি গ্রহণ করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। 


বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানিয়েছেন,২০২১ সালের মার্চ মাসের মধ্যে সমস্ত প্রবাসী মজদুরের হাতেই রেশন কার্ড তুলে দেওয়া হবে। এই রেশন কার্ডের মাধ্যমে দেশের যে কোনও স্থান থেকেই রেশন তুলতে পারবেন তাঁরা। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন এই প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের ২৩টি রাজ্যের প্রায় ৬৭ কোটি মানুষ উপকৃত হবেন। পাশাপাশি তিনি বলেছেন এই প্রকল্পের মাধ্যমে গণবন্টন ব্যবস্থা ৮৩ শতাংশ মানুষের কাছে  রেশনের মাধ্যমে খাবার পৌঁছে দেওয়া যাবে। 

আরও পড়ুনঃ সরকারি কর্মীদের জীবনেও বদল আনতে চলেছে করোনা, ১৫ দিন 'বাড়ি থেকে কাজের' পরিকল্পনা কেন্দ্রের ...

আরও পড়ুনঃ প্রবাসী শ্রমিক নিয়ে মুখ খুললেন নির্মলা, বিনামূল্যে রেশন থেকে ভাড়া বাড়ি ঘোষণা একগুচ্ছ প্রকল্পের ...

আরও পড়ুনঃ করোনা সংকট রুখতে অন্নদাতাদের পাশে কেন্দ্র, ৩০ হাজার কোটি টাকার অতিরিক্ত জরুরী ঋণ প্রদান ...

বর্তমানে করোনা সংকটের এই পরিস্থিতিতে অভিবাসী শ্রমিকদের কাছে খাবার পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এদিনই নির্মলা সীতারমন প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরকে পাশে বসিয়ে জানিয়েছেন এখনও অভিবাসী শ্রমিকদের রেশন দেওয়া হবে। তাঁদের রেশন কার্ড থাকুক আর না থাকুক সকলের মধ্যেই রেশন বিলি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রতিমাসে প্রত্যেককে ৫ কিলো চাল অথবা আটা সঙ্গে ১ কিলো ডাল দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছন নির্মলা। কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্প লাগু করবে রাজ্যসরকার। এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে।