এদেশে করোনা সংকটের মোকাবিলা করতে সামনে থেকে লড়াই করছেন চিকিৎসক, নার্স সহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা। কিন্তু তাঁদের সুরক্ষার জন্য পার্সোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্টস বা পিপিই কিটের যোগানে সংকট রয়েছে দেশের সর্বত্র। এই অবস্থায় চিকিৎসাকর্মীদের জন্য ১ কোটি ৭০ লক্ষ পিপিই কিট যোগাড়ের ব্যবস্থা করছে ভারত সরকার। আর এর মধ্যেই প্রশাসনের চিন্তা বাড়িয়ে দিল চিন থেকে আসা প্রায় ৫০ হাজার পিপিই কিট। সূত্রের খবর এই কিটগুলি সুরক্ষা ও গুণগত দিক থেকে ভারত সরকারের গুণগত মানের পরীক্ষায় উতরোতে পারেনি। 

ভারতীয় স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে চিন ১ কোটি ১০ লক্ষ পিপিই কিট পাঠাচ্ছে এদেশে। এরমধ্যে ৫ এপ্রিল প্রায় ৫০ হাজার কিট এদেশে এসে পৌঁছেছে। বর্তামনে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি পিপিই কিট সরবরাহ করছে চিন। কিন্তু চিনের পাঠান এই ৫০ হাজার পিপিই কিট ভারতের গুণগত মানের গণ্ডি পেরোতে পারেনি বলেই জানা যাচ্ছে। 


ভ্যাকসিন না পাওয়া পর্যন্ত চলবে লকডাউন, করোনা মোকাবিলায় সিদ্ধান্তের পথে রানির দেশ
লকডাউনের মাঝে জীবনযুদ্ধ, অসুস্থ বৃদ্ধ বাবাকে কোলে নিয়ে ছুটছেন ছেলে, ভাইরাল হল ভিডিও
এবার সংক্রমণের শিকার তবলিগি প্রধানের ২ আত্মীয়, দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ১২ হাজার

এর আগে দু'দফায় ৩০ হাজার ও ১০ হাজার পিপিই কিট এসেছিল ভারতে। যাদের মধ্যে অধিকাংশই চিনের তৈরি করা। এই কিটগুলির গুণগত মান নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে ভারত সরকার। ফলে স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য এদেশে আসা প্রায় ৯০ হাজার পিপিই কিট সুরক্ষিত নয় বলেই দাবি উঠছে। 

গোয়ালিয়রের ডিফেন্স রিসার্চ ও ডেভলপমেন্টে অরগানাইজেশনের ল্যাবে এই পিপিই কিটগুলির মান পরীক্ষা করা হয়েছিল। চিনের একটি বড় বেসরকারি সংস্থা এক কিটগুলি ভারতে সরবরাহের বরাত পেয়েছিল বলে জানা যাচ্ছে। যদিও ওই সংস্থার নাম প্রকাশ্যে আনা হয়নি। এই অবস্থায় দেশেই স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য পার্সোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্টস কিট দ্রুত ও বেশি সংখ্যায় বানানোর জন্য জোড় দেওয়া হচ্ছে। 

এদিকে সিঙ্গাপুরের একটি কোম্পানিকে পিপিই কিটের অর্ডার দেওয়া হলেও চিন থেকে কীভাবে তা সরবরাহ হল সেই বিষয়টি সরকারি আধকিরাকরা খতিয়ে দেখছেন বলে সূত্রের খবর। তবে আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই বলে আশ্বস্ত করছে সরকার। নতুন করে পিপিই কিট তৈরি হচ্ছে বলেও জানান হয়েছে। এক সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, "বর্তমানে দেশে প্রতিদিন ৩০ হাজার পিপিই কিট তৈরি হচ্ছে। এপ্রিলের শেষে সংখ্যাটা ৫০ হাজার পৌঁছে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।"

ওই সরকারি আধিকারিকের কথায় দেশে এখনও পর্যন্ত ১ লক্ষ ৫০ হাজার পিপিই কিট তৈরি করা হয়েছে। চলতি সপ্তাহের শেষেই আরও ১ লক্ষ পিপিই কিট উৎপাদন হয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এদিকে চিনের বিরুদ্ধে এর আগেও ফ্রান্স, ইতালি সহ একাধিক দেশ উপযুক্ত মানের মাস্ত সরবরাহ না করার অভিযোগ তুলেছে।