বৃহস্পতিবার লোকসভায় পাস হয়ে গেল তিন তালাক বিল। বিলের পক্ষে ভোট দেন ৩০৩ জন সাংসদ, আর বিপক্ষে ভোট পড়েছে ৮২টি। তবে বিল নিয়ে ভোটাভুটির আগেই বিলের বিরোধিতা করে কক্ষত্যাগ করেন, জেডিইউ, তৃণমূল কংগ্রেস ও কংগ্রেস সাংসদরা। বিলের বিষয়ে আলোচনার সময় সারা ভারত মজলিস-এ-ইত্তেহাদ-উল-মুসলিমিন নেতা আসাদুদ্দিন ওয়াইসি এক অদ্ভূত চ্যালেঞ্জ করলেন মোদী সরকারকে।

বিলের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানিয়েছিলেন, এই বিল লিঙ্গবৈষম্য দূর করবে। এরপরই বিলের বিরোধিতা করে ওয়াইসি বলেন, যদি মোদী সরকার মহিলাদের সমানাধিকার নিয়ে এতটাই চিন্তিত হন, তাহলে তাদের উচিত এক বিশেষ বিমানে করে বিজেপির সব মহিলা সাংসদদের নিয়ে শবরিমালা মন্দিরে যাওয়া। সেটা কী তারা করে দেখাতে পারবেন?

সুপ্রিম কোর্ট শবরিমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার দেওয়ার পরও বিজেপি দল ও হিন্দুত্ববাদী সংগঠগুলি মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ নিয়ে চরম বিরোধিতা করেছে। তিন তালাক বিল মহিলাদের সমানাধিকার দেবে এই যুক্তি খন্ডাতে সেই ঘটনাকেই হাতিয়ার করলেন ওয়াইসি।

তিনি বলেন বিলের প্রস্তাব অনুযায়ী তিন তালাক দিলে মুসলিম পুরুষদের তিমন বছরের জেল হবে। আবার সেই সঙ্গে তাঁদের স্ত্রীদের খোরপোষও দিতে হবে। জেলের ভিতর থেকে খোরপোষ দেওয়া কীভাবে সম্ভব, সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি। তাঁর মতে এতে করে বিবাহ নামক প্রতিষ্ঠানকেই নষ্ট করতে চাইছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। কারণ, তিন তালাক দেওয়া পুরুষটি জেল থেকে খোরপোষ না দিতে পারলে  তাঁর বিবাহবিচ্ছিন্না স্ত্রীকে রাস্তায় গিয়ে দাঁড়াতে হবে।

তিনি আরও বলেন সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে আগেই নিষিদ্ধ হয়েছে তাৎক্ষণিক তিন তালাক। এরপরেও একে ফৌজদারি অপরাধে পরিণত করে বিজেপি তথা মোদী সরকার আদতে মুসলিম পুরুষদের কারাগারে পাঠানোরই ছক কষছে। এই বিলটির অপব্যবহার করা হতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এআইমিম-এর নেতা।