আইএনএক্স মিডিয়া মামলায়ে অর্থ তছরুপের অভিযোগে বুধবার রাতে নাটকীয়ভাবে গ্রেফতার হলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম। বুধবার রাত ন'টা নাগাদ প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর বাড়িতে পৌঁছয় সিবিআই এবং ইডি-র আধিকারিকদের একটি দল। এদিন সেখান থেকেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানি গিয়েছে। 

জানা গিয়েছে এদিন সিবিআই-এর দফতরেই রাত কাটিয়েছেন দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। সূত্রের খবর, আজ বৃহস্পতিবার প্রথমে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে সিবিআই, এবং তারপরে তাঁকে আদালতে নিয়ে যাবে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী ওই সংস্থা এবং সেখানে তাঁর সর্বোচ্চ ১৪ দিনের হেফাজত চাইবে সিবিআই।

 তবে তাঁকে ধরতে গিয়ে এক নাটকীয় পরিবেশের সাক্ষী ছিল গোটা রাজ্য রাজনীতি। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর আগাম আবেদনে সুপ্রিম কোর্ট এদিন কার্যত নিশ্চুপ থাকায় আরও তৎপর হয়ে ওঠেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী এই সংস্থা। তবে সারাদিন খোঁজাখুজি করেও কংগ্রেস নেতার নাগাল পাননি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। পরে রাত রাত আটটা নাগাদ কংগ্রেস সদর দফতরে এসে সাংবাদিক বৈঠকে যোগ দেন তিনি। এরপর প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে গ্রেফতার করতে কংগ্রেস সদর দফতরে সিবিআই আধিকারিকরা যখন পৌঁছান সেখান থেকে ততক্ষণে বেরিয়ে বাড়ি চলে গিয়েছেন পি চিদম্বরম। কিন্তু তাঁর সেখানে গেট বন্ধ থাকায় তাঁর বাড়িতে ঢুকতে পারেননি সিবিআই আধিকারিকরা। মিনিট দু'য়েক অপেক্ষা করেই পাঁচিল টপকে তাঁর বাড়িতে ঢুকে পড়েন তাঁরা। সেখানে তাঁকে কিছুক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদের পরই তাঁকে গ্রেফতার করেন সিবিআই আধিকারিকরা। 

গ্রেফতার পি চিদম্বরম, নিয়ে যাওয়া হল সিবিআই সদর দফতরে

 দেশের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী তথা বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পদে থাকার সময়ে ২০০৭ সালে বিদেশ থেকে ৩০৫ কোটি টাকার পাইয়ে দিতে আইএনএক্স মিডিয়াকে ছাড়পত্র দিয়েছিলেন তিনি, পরিবর্তে তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরমকে আইএনএক্স মিডিয়া বিরাট অঙ্কের টাকা ঘুষ দেয় বলেও অভিযোগ। ২০১৭ সালে, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই একটি এফআইআর দায়ের করে তাঁর বিরুদ্ধে। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগকে ভিত্তিহীন এবং এটি আদতে বিরোধীদের ষড়যন্ত্র বলেও ব্যাখ্যা করেন তিনি।