পেশ হল সপ্তদশ লোকসভার পূর্ণাঙ্গ বাজেট।  ৫৯ বছর বয়সে অৰ্থমন্ত্রকের দায়িত্ব নিয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি পড়েছেন নির্মলা সীতারামণ। সংখ্যাতত্ত্বের নিরিখে গত ৪৫ বছরের মধ্যে বেকারত্ব ইতিমধ্যে শীর্ষে পৌঁছেছে। সেই সঙ্গে জিডিপিও কমছে। এই অবস্থায় বাজেট পেশ করলেন অর্থমন্ত্রী। পাঠ শেষ হলে দেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ অর্থমন্ত্রী হিসেবে নির্মলা সীতারামনের দূরদর্শিতার প্রশংসা করলেন নরেন্দ্র মোদী। দেখে নেওয়া যাক কী বললেন প্রধানমন্ত্রী- 
আরও পড়ুনঃ বাড়বে চাকরি, চাঙ্গা হবে অর্থনীতি, মোদী সরকারকে পথ দেখাল আর্থিক সমীক্ষা রিপোর্ট
শিক্ষাক্ষেত্রে খরচ বাড়বে তিনগুণ, জালিয়াতি আটকাতে সিদ্ধান্ত, উঠছে অন্য প্রশ্ন
 

  • এই বাজেটের মাধ্যমে মধ্যবিত্তরা সুবিধা পাবেন।
  • এই বাজেট রূপায়ণ হলে কর ব্য়বস্থা সরলীকরণ হবে। 
  • দেশের বিকাশে মহিলাদের অংশীদারী বাড়বে। 
  • বাজেটে নতুন শিক্ষানীতি ঘোষিত হয়েছে।
  • এই শিক্ষানীতিতে শিক্ষার মাণ ও পরিকাঠামোর উন্নতি হবে।
  • আর্টিফিশায়ল ইন্টালিজেন্সও জোরদার করার কথা এসেছে।
  • সৌরশক্তি ও বিদ্যুৎ পরিষেবা আরও ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করবে এই বাজেট।

এর পরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সাধারণ মানুষকে আগে নিজের অধিকারের জন্যে লড়তে হত। আমরা সেই বৈষম্য কমানোর জন্যেই লড়ছি। আমি আশা রাখি মানুষকে এই বাজেট নতুন পথ দেখাচ্ছে। এই বাজেট আশা বিশ্বাস ও আকাঙ্খার বাজেট। এই বাজেট নতুন ভারত গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে।এবার বাজেটে দুটি ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছে মোদী সরকার-
 

  • প্রথমত পাঁচ ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতিতে পৌঁছতে চাইছে সরকার।
  • দ্বিতীয়ত কৃষি যোজনা, বা মৎস্য যোজনা ২০২২-এর মধ্যে কৃষকের আয় দ্বিগুণ করবে বলে আশা মোদী সরকারের।

নরেন্দ্র মোদী এদিন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, 'জল সঞ্চয়ে আমরা বিশেষ নজর দেবো। আমরা বর্তমান নয়, ভবিষ্যতের কথা ভাবছি। বাজেটে নেওয়া সিদ্ধান্ত নতুন যৌবনকে নতুন প্রেরণা দেবে। এই বাজেট আমাদের নতুন শক্তি দেবে।' প্রসঙ্গত, আগামী কাল কাশী থেকে এই বাজেট নিয়ে বিস্তারিত কথা বলবেন নরেন্দ্র মোদী।