করোনা মোকাবিলায় তিনি নিজেই সার্ক গোষ্ঠীভুক্তদেশগুলিকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছিলেন। তার সেই আবেদনে সাড়া দিয়েছে পাকিস্তান সহ সার্কের অন্যান্য দেশ। রবিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যে আয়োজিত সেই বৈঠকে  সার্কের দেশগুলিকে আতঙ্কিত না হোয়ার পরামর্শই দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একই সঙ্গে করোনা মোকাবিলায় যৌথ তহবিল গড়ার প্রস্তাবও দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। এই তহবিলে প্রাথমিক ভাবে ১ কোটি মার্কিন ডলার দিচ্ছে ভারত। আর সোমবার একেবারে অন্য ভূমিকায় দেখা গেল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কে রাজধানীতে বিয়ের অনুষ্ঠানেও কোপ, এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ কেজরির

আরও পড়ুন: করোনা প্রাণ কেড়েছে বাবার, এবার মেয়ে আক্রান্ত হলেন মারণ ভাইরাসে

নরেন্দ্র মোদী বরাবরই সোশ্যাল মিডিয়া সচেতন। তার প্রকিটি কাজ, পদক্ষেপ, চিন্তা-ভাবনার কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় ফলোয়ারদের সঙ্গে শেয়ার করেন তিনি। এদেশে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু হতেই আশঙ্কা প্রকাশ করে ট্যুইট করেছিলেন মোদী। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ মেনে জমায়েত এড়িয়ে চলতে  হোলির অনুষ্ঠানে অংশ নেননি। আর এবার কোভডি-১৯ ভাইরাসের বিরুদ্ধে দেশের মানুষ কীভাবে লড়ছেন সেই চিত্রই তুলে ধরলেন প্রধানমন্ত্রী।

 

 

এক ট্যুইটার ব্যবহারকারী জানিয়েছেন সচেতন নাগরিক হিসাবে তিনি বাড়িতে থেকে কাজ করছেন। সেই ট্যুইট তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজন ছাড়া মানুষকে বেড় হতে নিষেধ করেছেন।

 

 

যেভাবে প্রশাসন করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছে তার প্রশংসা করেছেন এই ট্যুইটার ইউজার। নিজের ট্যুইটে সেটিও তুলে ধরেছেন মোদী।

 

 

সচেতন নাগরিক হিসাবে একজনের ট্যুইট তুলে প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। 

 

 

চিকিৎসক, নার্স, সরকারিকর্মীরা যেভাবে গোটা পরিস্থিতিতে ঝাঁপিয়ে পড়ে কাজ করছেন তার বাহবা দিয়েছেন মোদী।

 

 

এই চরম পরিস্থিতিতে দেশবাসীকে একতা বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছেন মোদী।