প্রণব মুখোপাধ্যা, ভারতীয় রাজনীতির এক নক্ষত্র। কংগ্রেসের কৌটিল্য তিনি, সামলেছেন দলের একের পর এক ঝড়। তবে এসবের বাইরে তিনি একেবারে আদ্যপ্রান্ত বাঙালি। দিল্লির অভ্যস্ত জীবনেও বজায় রেখেছিলেন তাঁর সেই বাঙালিয়ানা। খাওয়া, দাওয়াতেও একেবারে বাঙালি। তাই হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার দিনকয়েক আগে ছেলের কাছে কাঠাল খাওয়ার আবদার করেছিলেন দেশের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট। পুত্র অভিজিৎ নিজেই সেই কথা ফাঁস করলেন।

হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার কয়েকদিন আগেই নিজের গ্রামের কাঁঠাল খেতে চেয়েছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়৷ ছেলে অভিজিতকে বলেছিলেন  বলেছিলেন 'কাঁঠাল নিয়ে আয়৷' বীরভূমের কীর্ণাহারে তাঁর নিজের গ্রাম মিরাটির কাঁঠাল বড় প্রিয় দেশের প্রথম বাঙালি  রাষ্ট্রপতির ৷ তাই বাবার জন্য মিরাটি গ্রাম থেকে  প্রায় ২৫ কেজি ওজনের একটি পাকা কাঁঠাল নিয়ে ট্রেনে করে দিল্লি গিয়েছিলেন অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন কংগ্রেসের প্রাক্তন সাংসদ তথা প্রণব মুখোপাধ্যায়ের ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন: চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি, আশ্বস্ত করলেন প্রণব পুত্র

ট্রেনে করেই বাবার জন্য কাঁঠাল নিয়ে দিল্লি পৌঁছেছিলেন অভিজিৎ। এই প্রসঙ্গেই তিনি জানান, প্রণববাবুও ট্রেন সফর করতে বড় ভালবাসেন। ছেলে দিল্লি  যাওয়ার পর নিজের দেশের বাড়ির কাঁঠাল প্রাণ ভরে খেয়েছিলেন প্রণব। 'খুব খুশি হয়েছিলেন বাবা', এমনটাই জানাচ্ছেন ছেলে অভিজিত। যদিও ব্লাড সুগারের পেশেন্ট প্রণববাবু। তবে কাঁঠাল খাওয়ার পরও সৌভাগ্যবশত তার সুগার বাড়েনি।

বর্তমানে  দিল্লির সেনার রিসার্চ অ্যান্ড রেফেরাল হাসাপাতালে ভর্তি রয়েছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। গত রবিবার বাড়িতে পড়ে গিয়ে মাথায় চোট পেয়েছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। মাথায় জমাট বাঁধা রক্ত বার করতে ১০ আগস্ট রাতে দিল্লির সেনা হাসপাতালে তাঁর মস্তিস্কে অস্ত্রোপচার করতে হয়। অস্ত্রোপচারের আগে পরীক্ষা করতে গিয়ে তাঁর শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। সোমবার রাতে অস্ত্রোপচারের পর থেকেই ধীরে ধীরে প্রণববাবুর স্বাস্থ্যের অবনতি হতে থাকে। তবে  ধীরে হলেও দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়  চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন। এমন স্বস্তির খবর শুনিয়েছেন স্বয়ং পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়। 

আরও পড়ুন: রাশিয়ার ভ্যাকসিন নিয়ে সন্দেহ দূর হচ্ছে না 'হু'-র, বয়স্কদের শরীরে কার্যকারিতা নেই প্রশ্ন পুতিনের দেশেই

 ট্যুইট করে প্রণব পুত্র লিখেছেন, ‘আমার বাবা বরাবরের যোদ্ধা। চিকিৎসায় ধীরে ধীরে সাড়া দিচ্ছেন এবং তাঁর সব গুরুত্বপূর্ণ মাপকাঠি স্থিতিশীল রয়েছে। আমার বাবার দ্রুত সুস্থতার জন্য প্রত্যেক শুভাকাঙ্ক্ষীকে প্রার্থনা করার আর্জি জানাচ্ছি। তাঁদের লাগবে আমাদের।’

এরআগে বৃহস্পতিবার সেনার রিসার্চ অ্যান্ড রেফেরাল হাসাপাতালের তরফে এক মেডিক্যাল বুলেটিনে জানানো হয়, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের স্বাস্থ্যের নতুন করে কোনও উন্নতি হয়নি। বর্তমানে তিনি গভীর ভাবে কোমায় আচ্ছন্ন রয়েছেন। তবে, তাঁর হৃদ‌্‌যন্ত্রের কাজ, শরীরে রক্ত সঞ্চালন, রক্তচাপ স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে। প্রণববাবু  লাইফ সার্পোটে রয়েছেন।

অভিজিৎ জানিয়েছেন, 'বাবা যেহেতু একসময় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ছিলেন, তাই তাঁর সমস্ত মেডিক্যাল রিপোর্ট সেনা হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছে রয়েছে৷ সেই কারণেই তাঁকে দিল্লি ক্যান্টনমেন্টের আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ এখনও পর্যন্ত পিপিই এবং যাবতীয় সুরক্ষা উপকরণ পরে আমি চার বার তাঁকে দেখতে পেরেছি৷ শেষ বারও যখন তাঁকে দেখেছি, উনি স্বাভাবিক শ্বাসপ্রশ্বাসই নিচ্ছিলেন৷'