উৎকন্ঠায় কেটেছে গত ৪ দিন। অবশেষে দেখা গেল সামান্য আলোর রেখা। ধীরে হলেও চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। স্বস্তির খবর শোনালেন স্বয়ং পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়। 

 ট্যুইট করে প্রণব পুত্র লেখেন, ‘আমার বাবা বরাবরের যোদ্ধা। চিকিৎসায় ধীরে ধীরে সাড়া দিচ্ছেন এবং তাঁর সব গুরুত্বপূর্ণ মাপকাঠি স্থিতিশীল রয়েছে। আমার বাবার দ্রুত সুস্থতার জন্য প্রত্যেক শুভাকাঙ্ক্ষীকে প্রার্থনা করার আর্জি জানাচ্ছি। তাঁদের লাগবে আমাদের।’

 

এরআগে বৃহস্পতিবার সেনার রিসার্চ অ্যান্ড রেফেরাল হাসাপাতালের তরফে এক মেডিক্যাল বুলেটিনে জানানো হয়, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের স্বাস্থ্যের নতুন করে কোনও উন্নতি হয়নি। বর্তমানে তিনি গভীর ভাবে কোমায় আচ্ছন্ন রয়েছেন। তবে, তাঁর হৃদ‌্‌যন্ত্রের কাজ, শরীরে রক্ত সঞ্চালন, রক্তচাপ স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে। প্রণববাবু  লাইফ সার্পোটে রয়েছেন।

আরও পড়ুন: প্রণবের মৃত্যুর ভুয়ো খবর ছড়ালেন বিশিষ্ট সাংবাদিক, গুজবে তিতিবিরক্ত মুখোপাধ্যায় পরিবার

এরপর রাতে রাতে কংগ্রেসের প্রাক্তন সাংসদ অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় জানান,  ধীর গতিতে হলেও বাবা চিকিত্‍‌সায় সাড়া দিচ্ছেন। ভাইটাল প্যারামিটারগুলি স্থিতিশীল রয়েছে।

রবিবার বাড়িতে পড়ে গিয়ে মাথায় চোট পেয়েছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। মাথায় জমাট বাঁধা রক্ত বার করতে ১০ অগস্ট রাতে দিল্লির সেনা হাসপাতালে তাঁর মস্তিস্কে অস্ত্রোপচার করতে হয়। অস্ত্রোপচারের আগে পরীক্ষা করতে গিয়ে তাঁর শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। সোমবার রাতে অস্ত্রোপচারের পর থেকেই ধীরে ধীরে প্রণববাবুর স্বাস্থ্যের অবনতি হতে থাকে।

আরও পড়ুন: ইমরানের চালকে বানচাল করল ভারত, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মেডিক্যাল ডিগ্রিকে মান্যতাই দিল না এমসিআই

ভারতের ১৩ তম রাষ্ট্রপতি ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। রাষ্ট্রপতি হিসেবে তাঁর কার্যকালের মেয়াদ ছিল ২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত। রাষ্ট্রপতি হওয়ার আগে ইন্দিরা গান্ধী, নরসিমা রাও ও মনমোহন সিংয়ের মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলেছেন প্রবীণ এই কংগ্রেস নেতা।