সভাপতি পদ থেকে আগেই ইস্তফা দিয়েছিলেন। এবার সভাপতি নির্বাচনের প্রক্রিয়া থেকেই নিজেকে সরিয়ে নিলেন রাহুল গান্ধী। একা রাহুল নন, সনিয়াও সভাপতি নির্বাচন সংক্রান্ত আলোচনায় থাকছেন না। দিল্লিতে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক থেকে ইতিমধ্যেই বেরিয়ে গিয়েছেন দু' জনেই। 

এ দিন সকালেই দিল্লিতে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক শুরু হয়েছে। এই বৈঠক থেকে কংগ্রেসের নতুন সভাপতি নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

নতুন সভাপতি নির্বাচনে যাতে গান্ধী পরিবারের প্রভাব খাটানোর অভিযোগ না উঠতে পারে, সম্ভবত সেই কারণেই নিজেদের এই বৈঠক থেকে সরিয়ে নিলেন রাহুল- সনিয়া। 

আরও পড়ুন- শনিবার হতে পারে নতুন কংগ্রেস সভাপতির নাম ঘোষণা, সম্ভাব্য পদে উঠে আসছে কার নাম

কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালার অবশ্য দাবি, সভাপতি পদে এখনও রাহুলের ইস্তফা গৃহীত হয়নি ওয়ার্কিং কমিটিতে। বিষয়টি নিয়ে এ দিন বিকেলে সভায় আলোচনা হতে পারে। 

তবে এ দিনই যে নতুন স্থায়ী সভাপতি কংগ্রেস পাবে, তার কোনও নিশ্চয়তা নেই। শোনা যাচ্ছে, নতুন সভাপতির নাম নিয়ে ওয়ার্কিং কমিটির সদস্যরা ঐক্যমতে পৌঁছতে ব্যর্থ হলে আপাতত একজন অন্তর্বর্তী সভাপতি বেছে নেওয়া হতে পারে। একই সঙ্গে ওযার্কিং কমিটির সদস্য কয়েকজন নেতাকে নিয়ে একটি কমিটি তৈরি করে দেওয়া হতে পারে। যাঁরা দলের নিচুতলার নেতা, কর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে নতুন সভাপতির নাম প্রস্তাব করবেন। পরে ফের একটি ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকে সেই নামে চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হবে।