শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকেই ফেরত পাঠানো হল রাহুল গান্ধী- সহ বিরোধী নেতাদের। এ দিন রাহুল গান্ধী-সহ ন' দলের এগারোজন নেতা দুপুরের দিকে শ্রীনগর বিমানবন্দরে পৌঁছন। কিন্তু বিমানবন্দর থেকেই বেরোতে দেওয়া হয়নি বিরোধী নেতাদের। শ্রীনগর থেকে বিকেলের বিমানেই তাঁদের দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা করিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন। 

আরও পড়ুন- কাশ্মীরে ঢোকা যাবে না,রওনার আগে রাহুলদের জানিয়ে দিল সরকার

বিরোধীরা শনিবার কাশ্মীরে যাবেন, এই খবর সামনে আসার পরেই রাজ্য প্রশাসন জানিয়েছিল, এই পরিস্থিতিতে কোনও রাজনৈতিক দলের নেতাদেরই কাশ্মীরে আসা কাম্য নয়। যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছিল, ধীরে ধীরে উপত্যকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে। এই অবস্থায় সেখানে রাজনৈতিক নেতারা গেলে উত্তেজনা বাড়তে পারে। এর পরেই বিরোধী নেতাদের কাশ্মীরে ঢোকার অনুমতি দেওয়া নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছিল। 

৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের পরে কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে এ দিন সকালেই দিল্লি থেকে শ্রীনগরের উদ্দেশ্যে বিমানে রওনা দেন রাহুল গান্ধী, গুলাম নবি আজাদ, সীতারাম ইয়েচুরি, ডি রাজার মতো বিরোধী দলের নেতারা। উপত্যকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি স্থানীয় রাজনৈতিক দলগুলির নেতাদের সঙ্গেও দেখা করার কথা ছিল বিরোধী নেতাদের। শেষ পর্যন্ত বিমানবন্দর থেকেই অবশ্য ফিরতে হচ্ছে বিরোধীদের। দিল্লি ফিরেই বিষয়টি নিয়ে যে বিরোধীরা সরব হবেন, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।