করোনাভাইরাস মোকাবিলায় গোটা দেশে চলছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে যখন ব্যক্তি থেকে সংস্থা সবার মধ্যেই ঘোর অনিশ্চয়তা, তখন সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলিকে বড় রকমের রেহাই দিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস ঘোষণা করলেন, সমস্ত রকম টার্ম লোনের উপরে তিন মাস মোরাটোরিয়াম থাকবে। সব কমার্শিয়াল ব্যাঙ্ক, নন ব্যাঙ্কিং ফিনান্সিয়াল কোম্পানি, গ্রামীণ ব্যাঙ্ককে অনুমতি দেওয়া হল, তারা তিন মাস ইনস্টলমেন্ট পেমেন্ট নেওয়া স্থগিত রাখতে পারবে। তাঁর কথায়, “১ মার্চ থেকে যে ইনস্টলমেন্ট পেমেন্ট বকেয়া রয়েছে তা তিন মাস পিছিয়ে দেওয়া যেতে পারে। এবং সেই অনুসারে ঋণ শোধ দেওয়ার মেয়াদও পিছিয়ে দিতে হবে”।

লকডাউন মোকাবিলায় রেপো রেট কমাল আরবিআই, জনতাকে স্বস্তি দিয়ে মকুব হল ৩ মাসের ইএমআই

আপাতত ইএমআই থেকে স্বস্তি দেশবাসীর, দেখে নিন করোনা যুদ্ধে আর কী কী পদক্ষেপ করল আরবিআই

দিনে আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছুঁলেও তৈরি আপ সরকার, ৪ লক্ষ মানুষকে খাওয়াবেন কেজরি

এই ঘোষণার পরে সাধারণ মানুষের মধ্যে অনেক প্রশ্নই জমা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে, এই মোরাটোরিয়াম কি ক্রেডিট কার্ডের টাকা পরিশোধের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে? ক্রেডিট কার্ডের প্রাপ্য টাকা কি এখন আর দিতে হবে না? টিভি, ফ্রিজ বা মোবাইলের ইএমআইয়ের কী হবে। সেই  সবেরই জবাব দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ। মানুষের প্রশ্ন ও শীর্ষ ব্যাঙ্কের উত্তর আপনাদের সুবিধার জন্য এখানে তুলে ধরা হল।

 

 

প্রশ্ন:  শিগগির আমাকে ইএমআই দিতে হবে। সেটা কি এপ্রিলে আমার অ্যাকাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হবে না?
উত্তর: রিজার্ভ ব্যাঙ্ক সমস্ত বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক, এনবিএফসি এবং গ্রামীণ ব্যাঙ্ককে শুধু অনুমতি দিয়েছে যে তারা ইএমআই পেমেন্ট নেওয়া তিন মাস স্থগিত রাখতে পারে। এখন যতক্ষণ পর্যন্ত আপনার ব্যাঙ্ক এই মর্মে কোনও সিদ্ধান্ত নিচ্ছে ততক্ষণ আপনি এই সুবিধা পাবেন না।

ইতিমধ্যে এসবিআই প্রধান রজনীশ কুমার জানিয়ে দিয়েছেন আগামী ৩ মাস ইএমআই পরিশোধ করতে হবে না।

প্রশ্ন: ব্যাঙ্ক যদি আমার থেকে ইএমআই নেওয়া বন্ধ রাখে, তা হলে কি আমার ক্রেডিট স্কোর কমে যাবে?
উত্তর: না, আপনার ক্রেডিট স্কোর কমবে না। এ ব্যাপারে রিজার্ভ ব্যাঙ্কও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে ব্যাঙ্কগুলিকে।

প্রশ্ন: কোন কোন ব্যাঙ্ক তার গ্রাহকদের এই সুবিধা দিতে পারে?
উত্তর: সব বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক, গ্রামীণ ব্যাঙ্ক, কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক, নন ব্যাঙ্কিং ফাইনান্সিয়াল কোম্পানিকে মোরাটোরিয়াম ঘোষণার অনুমতি দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।

প্রশ্ন: আমার ইএমআই কি ছাড় দেওয়া হল, নাকি পিছিয়ে দেওয়া হল?
উত্তর: না, ছাড় দেওয়া হয়নি। পিছিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। অর্থাৎ পেমেন্ট শিডিউল পিছিয়ে যাবে।

প্রশ্ন: তাহলে কী জুন মাসে আমায় ৩টি ইএমআই একসঙ্গে পরিশোধ করতে হবে?
উত্তর: ১ মার্চ থেকে যে ইনস্টলমেন্ট পেমেন্ট বকেয়া রয়েছে তা তিন মাস পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে । এবং সেই অনুসারে ঋণ শোধ দেওয়ার মেয়াদও পিছিয়ে  দেওয়া হবে। এই নিয়ে পরে আরও বিশদে জানান হবে।

প্রশ্ন: আমি কী করে জানব যে আমার থেকে ইএমআই নেওয়া আপাতত স্থগিত রেখেছে ব্যাঙ্ক?
উত্তর: রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এ ব্যাপারে এখনও গাইডলাইন তথা নির্দেশিকা ইস্যু করেনি। তা করলেই এ বিষয়ে আরও স্বচ্ছতা আসবে।

প্রশ্ন: ব্যাঙ্ক কীভাবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের এই নির্দেশ বলবৎ করবে?
উত্তর: সব ব্যাঙ্ককেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের এই পরামর্শ নিয়ে আলোচনা করতে হবে। এবং প্রতিটি ব্যাঙ্কে তাদের বোর্ডের মিটিং ডেকে এ ব্যাপারে প্রস্তাব অনুমোদন করাতে হবে। সেই অনুমোদনের পরই তারা গ্রাহকদের জানাতে পারবে যে তারা কী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ গ্রাহকদের কাছে কতটা সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

প্রশ্ন: ইএমআই স্থগিত রাখা মানে কি সুদ ও আসল দুটোই নেওয়া হবে না?
উত্তর: হ্যাঁ। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের পরামর্শ মেনে আপনার ব্যাঙ্ক যদি আপনার থেকে তিন মাস ইএমআই না নেয়, তা হলে এই তিন মাস সুদ ও আসলের টাকা ফেরত দিতে হবে না। ১ মার্চ, ২০২০ থেকে বকেয়া ঋণের উপরেই তা প্রযোজ্য হবে।

প্রশ্ন: এই স্থগিতাদেশের আওতায় কী কী ধরনের ঋণ থাকবে?
উত্তর: রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নীতিতে টার্ম লোনের সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা রয়েছে। গাড়ি, বাড়ি, শিক্ষা সহ যে কোনও ধরনের ঋণ যা শোধ দেওয়ার সুনির্দিষ্ট মেয়াদ রয়েছে তা এর মধ্যে পড়বে। এমনকি ফ্রিজ, টিভি, মোবাইল কেনার জন্য যে ইএমআই দেওয়া হয় তাও এর মধ্যেই পড়ে।

প্রশ্ন: মোরাটোরিয়ামের আওতায় কি ক্রেডিট কার্ড পেমেন্টও পড়বে?
উত্তর: যেহেতু ক্রেডিট কার্ডের ঋণের উপর চক্রবৃদ্ধি সুদ ধার্য হয় এবং তা টার্ম লোন নয় তথা সুনির্দিষ্ট মেয়াদ নেই তাই তা এর আওতায় পড়বে না।

প্রশ্ন: আমি একটি কারখানা শুরু করতে প্রোজেক্ট লোন নিয়েছি। আমিও কি ইএমআই নাও দিতে পারি?
উত্তর: সব রকমের সুনির্দিষ্ট মেয়াদের ঋণের ইএমআই-এর উপরেই মোরাটোরিয়ামের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ব্যাঙ্ক যদি মনে করে আপনার এখনই ইএমআই দেওয়ার ক্ষমতা নেই, তা হলে তা পিছিয়ে দিতে পারে।

প্রশ্ন: ব্যবসার জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্ক কী ঘোষণা করেছে?
উত্তর: মূলধন খাতে নেওয়া সমস্ত ঋণের উপর সুদ নেওয়া আপাতত পিছিয়ে দিতে বলেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। ১ মার্চ, ২০২০ থেকে বকেয়া সুদ এ ক্ষেত্রে বিবেচিত ও প্রযোজ্য হবে। যে কদিনের জন্য সুদ নেওয়া পিছিয়ে দেওয়া হবে, সেই কদিনের সুদ অবশ্যই পরে মেটাতে হবে ব্যবসায়ীদের।