আবারও কিছু দিনের স্বস্তিতে লিকার ব্যারন বিজয় মালিয়া। স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার নেতৃত্বে বাকি ব্যাঙ্ক গুলির কনসোর্টিয়ামের মামালায়র ওপর আপাতত স্থগিতাদেশ দিয়েছেন লন্ডনের একটি আদালত। ৯ হাজার কোটি টাকার ঋণ নিয়ে তা পরিশোধ না করেই দেশে ছেড়েছিলেন বিজয় মালিয়া। সেই টাকা ফিরিয়ে আনতেই ইংল্যান্ডের আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। সেই মামায় আপাতত স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছে। 

লন্ডনের আদালতের বিচারপতি মাইকেল ব্রিগেস জানিয়েছেন, সুপ্রিম কোর্ট ও কর্নাটক হাইকোর্টে দায়ের হওয়া মামলার মীমাংসার প্রস্তাবকে বিচারাধীন করা যেতেই পারে। পাশাপাশি ওই দুটি মামলা শেষ না হওয়া পর্যন্ত মালিয়াকে সময় দেওয়া যেতেই পারে। আরও বলা হয়েছে ব্যাঙ্কগুলির পক্ষে এখনও  পর্যন্ত  সুস্পষ্ট কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। 

অভিযোগ ভারেতর একাধিক ব্যাঙ্ক থেকে প্রায় ৯হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়েছিলেন বিজয় মালিয়া। কিন্তু সেই সব ঋণ পরিষোধ না করে তিনি প্রশাসনের অজান্তে রাতারাতি দেশ ছেড়ে চলে যায়। আশ্রয় নিয়েছিলেন ইংল্যান্ডে। সেখান থেকে তাঁকে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আশার পাশাপাশি মালিয়ার একাধিক সংস্থাকে দেউলিয়া ঘোষণা করে টাকা ফিরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিল রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাঙ্কগুলি।  মালিয়ার সংস্থাগুলিকে দেউলিয়া ঘোষণা করার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয়। পাশাপাশি আরও জানান হয়েছে, পুরো ঋণ পরিশোধের জন্য মালিয়ার সময় প্রয়োজন। বর্তমানে ভারতের ব্য়াঙ্কগুলি সুরক্ষিত রয়েছে। তাই বিজয় মালিয়াকে আরও কিছুটা সময় দেওয়া যেতে পারে বলেই মন্তব্য করা হয়েছে। 

গত ডিসেম্বর থেকেই বিজয় মালিয়াকে দেউলি ঘোষণা করে টাকা পুর্ণরোদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে আগামী পয়লা জুন পর্যন্ত এই মামলার শুনানির ওপর স্থগিতাদেশ দিয়েছেন বিচারপতি। যদিও বাদী ও বিবাদী দুই পক্ষই তাতে সহমত পোষণ করেন। 
আরও পড়ুনঃ লাগাতার নমুনা পরীক্ষাতেই সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য, চিন্তা বাড়াচ্ছে আইসিএমআর এর গোষ্ঠী সংক্রমণের ইঙ্...
আরও পড়ুনঃ লকডাউনে ছেলেকে ঘরে ফেরাতে মরিয়া মা, সব উপেক্ষা করে ৩ দিনে অতিক্রম ১৪শ কিলোমিটার
আরও পড়ুনঃ নিউ ইয়র্কে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের জন্য চিন দায়ি নয়, ইঙ্গিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমীক্ষায়
গতবছর শুনানিতে বিজয় মালিয়া জানিয়েছেন তাঁর বেশিরভাগ সম্পত্তি রয়েছে ভারতে। তবে এখনও পর্যন্ত বিদেশেও তাঁর একাধিক সম্পত্তির হদিশ পাওয়া গেছে। ফ্রান্স, ভার্জিনিয়া, ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জসহ একাধিক দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে তাঁর সম্পত্তি। আর সেই বিজয় মালিয়াই ভারতের ১৩টি ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়ে তা পরিশোধ না করেই দেশ ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।