একজন মা হিসাবে তিনি অবশ্যই দুঃখ পেয়েছেন। কিন্তু, তার পুত্র দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছেন বলে গর্বিতও। এমনটাই জানালেন ১৬ নম্বর বিহার রেজিমেন্টের কমান্ডিং অফিসার সন্তোষ বাবুর মা। সোমবার রাতে গালওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনাবাহিনীর সঙ্গে হিংসাত্মক সংঘর্ষে নিহত তিন শহিদের অন্যতম।

মঙ্গলবার কর্নেল সন্তোষ বাবুর মা জানিয়েছেন, 'মা হিসাবে আমি দুঃখিত কিন্তু আমি গর্বিত যে ও দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছে'। তিনি আরও জানিয়েছেন সোমবার রাতেই সেনার পক্ষ থেকে সন্তোষ বাবুর মৃত্যু সংবাদ দেওয়া হয় তাঁর স্ত্রীকে। পুত্রবধূই মঙ্গলবার বিকেলে সন্তোষের মা-কে খবরটা জানান।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এদিন এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, দুই পক্ষের সেনাপ স্ট্যান্ডঅফের সময়ই সোমবার রাতে গালওয়ান উপত্যকায় দুই ভারত ও চিন সেনার মধ্য়ে সংঘর্ষ বাধে। তাতে সন্তোষ বাবু ছাড়াও আরও দুইজন সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। গত ৪৫ বছরের মধ্য়ে ভারত-চিন সীমান্তে এ জাতীয় ঘটনাটি এই প্রথম ঘটল। কাজেই দুই দেশের মধ্যে এই মুহূর্তে উত্তেজনা যে চরমে এই ঘটনাতেই তার প্রতিফলন ঘটেছে।

ভারতীয় সেনাবাহিনী আরও জানিয়েছে, এই হিংসাত্মক সংঘর্ষে শুধু ভারতীয় সেনারাই নন, দুইপক্ষের বাহিনীরই বেশ কয়েকজন আহত ও নিহত হয়েছেন। তবে চিনা পক্ষের কজন হতাহত হয়েছেন, সেই বিষয়ে বেজিং থেকে নিশ্চিতভাবে কিছু জানানো হয়নি। তবে বেসরকারি সূত্রে খবর চিনা পিপলস লিবারেশন আর্মির অন্তত ৫জনের মৃত্যু হয়েছে।