লখনউ-তে বেড়াতে এসে সেখানকার ঐতিহাসিক ইমামবড়া মসজিদগুলি না দেখলে আপনার ঘোরা অসম্পূর্ণই থেকে যাবে। তবে এবার যেমন তেমন পোশাক পরে আর ঢোকা যাবে না লখনউ-এর এইসব ঐতিহাসিক ইমামবড়ায়। 

লখনউ-এর জেলা শাসক কুশল রাজ শর্মা সম্প্রতি সেখানকার শিয়া সম্প্রদায়ের সঙ্গে একটি বৈঠকে বসছিলেন। সেখানে একটি আলোচনার মাধ্যমে উঠে এসেছে যে, মহিলা পর্যটকদের ইমামবড়ার ভেতরে প্রবেশ করতে হলে পরতে হবে শালীন পোশাক। ছোট স্কার্ট, খোলামেলা টপ কিংবা অন্য কোনওরকম অশালীন পোশাক পরে ছোট বা বড় ইমামবড়ার ভেতরে প্রবেশ করা যাবে না। জেলা শাসক-এর কথায় প্রায় ২০০ বছরের পুরনো এই ধর্মীয় স্থাপত্যের পবিত্রতার কথা মাথায় রেখেই পর্যটকদের পোশাক নির্বাচন করতে হবে। তিনি আরও বলেন, শরীর ঢাকা থাকবে এমন পোশাক পরেই ইমামবড়ার ভেতর প্রবেশ করতে হবে। 

ইমামবড়ার ভেতর যাবতীয় প্রফেশনাল ফটোগ্রাফি এবং ভিডিও শ্যুটিং-ও বন্ধ করা হয়েছে বলে জানান তিনি। সেইসঙ্গে তিনি আরও বলেন যে, লখনউ-এর  ছোট বা বড় ইমামবাড়ায় নিযুক্ত নিরাপত্তারক্ষী এবং গাইড-দেরও এই বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া হবে যে, খোলামেলা পোশাক পরা কোনও মহিলাকে ইমামবড়ার ভেতরে যাতে প্রবেশ করতে না দেওয়া হয়। ইমামবাড়ার পবিত্রতা বজায় রাখার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

বৃষ্টির জল জমেছে স্ট্যাচু অব ইউনিটিতে,ভাইরাল ভিডিও দেখে নিন্দায় সরব নেটিজেনরা

প্রসঙ্গত, এরইমধ্যে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া-র তরফ থেকে দুই ইমামবড়া মসজিদকে সংরক্ষিত স্থান হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এদিন জেলা প্রাশাসনের সঙ্গে ওই বৈঠকে শিয়া সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া-র কর্মকর্তারাও। জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, তাঁদের পক্ষ থেকেও এই সিদ্ধান্তের কোনও বিরোধিতা করা হয়নি।