বিদেশ মন্ত্রী হিসেবে মানুষের মন জয় করেছিলেন সুষমা স্বরাজ। শুধু নিজের দেশের জন্যই নয়, পাকিস্তানের মানুষের ডাকেও সাড়া দিয়েছিলেন প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী। 

২০১৭-য় ফইজা তনবীর নামে পাকিস্তানের এক তরুণী সুষমা স্বরাজের কাছে সাহায্য পেয়েছিলেন। ওই তরুণী সেই  সময়ে ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন। মুখের ভিতর হওয়া অ্যামেলোব্লাস্টোমা নামের সেই টিউমার ক্রমশ বাড়ছিল। সেই ক্যানসারের চিকিৎসার জন্য ভারতে আসা প্রয়োজন ছিল ফইজার। চিকিৎসার জন্য় গাজিয়াবাদের এক ডেন্টাল হাসপাতালে ১০ লক্ষ টাকা অগ্রিম দিয়েছিলেন তরুণী। কিন্তু ইসলামাবাদের ভারতীয় হাইকমিশন তাঁকে ভিসা দিতে রাজি হননি। সেই সময়ে ভারত পাক সম্পর্কের অবনতি হয়েছিল বলেই তাঁকে ভিসা দেওয়া হয়নি বলে জানা যায়নি। 

আরও পড়ুন- মৃত্যুতেও ব্যতিক্রমী সুষমা স্বরাজ, পাকিস্তানেও মন খারাপ

তখন বাধ্য হয়ে সুষমা স্বরাজকে টুইট করে সাহায্য চান ফইজা। নিজের ফোন নম্বর সমেত ফইজা টুইট করেন, ম্যাম দয়া  করে আমার প্রাণ বাঁচান।

সেই বছর ভারতের স্বাধীনতা দিবসের ৭০ বছর পূর্ণ হচ্ছিল।  সেকথাও নিজের টুইটে উল্লেখ করেন পাক তরুণী। সেই টুইট দেখে ফইজাকে সাড়া দিয়েছিলেন সুষমা। তিনি যাতে ভারতে এসে চিকিৎসা করাতে পারেন তার জন্য ভিসার ব্যবস্থাও করে দিয়েছিলেন তিনি। সুষমা টুইট করে জানিয়েছিলেন, ভারতের স্বাধীনতা দিবসে শুভেচ্ছা জানানোর জন্য তোমায় ধন্যবাদ। ভারতে চিকিৎসার জন্য তোমায় আমরা ভিসা দিচ্ছি। 

বিদেশমন্ত্রীর সাহায্যে মেডিক্যাল ভিসা সমেত ভারতে এসে চিকিৎসা করাতে সক্ষম হন ফইজা তনবীর।