করোনা ভাইরাস নামটা শুনলেই প্রত্যেকেই যেন আতঙ্কিত। মুহূর্তের মধ্যে একজনের থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস।  মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গেই ছড়িয়ে যাচ্ছে এই রোগের জীবানু। কোনওভাবেই আটকানো যাচ্ছে না এই ভাইরাসকে। এই ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত সর্তকতা নেওয়া হয়েছে। ভারতে আসার পর থেকে এই আতঙ্ক এবার আরও বেড়েছে। করোনা রুখতে একটানা লকডাউনের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। তাতে কি আদৌ আটকানো যাচ্ছে করোনা ভাইরাসকে। 

 

 

যত দিন যাচ্ছে ততই যেন নিজের চরিত্র বদলে নিচ্ছে করোনা ভাইরাস। বিশেষজ্ঞরা  এই নিয়ে যথেষ্ঠ চিন্তিত হয়ে পড়েছে। ক্রমশ সক্রিয় হচ্ছে এল-টাইপ করোনা ভাইরাস। যার প্রথম দেখা মিলল গুজরাটে। এই এল-টাইপ করোনা ভাইরাস প্রথম দেখা মিলেছিল চিনের উহানে। যাকে কিনা চিনের আতুড়ঘর বলা হয়। সেই ভাইরাসের দেখা মিলল এবার ভারতে।

 

আরও পড়ুন-'প্লাজমা থেরাপি'র আশায় জল ঢালল কেন্দ্র, রক্তরস অদল-বদলে রয়েছে 'প্রাণের ঝুঁকি'ও...

আরও পড়ুন-করোনা ভাইরাস এবার হানা দিতে পারে চোখেও, সতর্ক থাকুন এখনই...

আরও পড়ুন-ওয়ার্ক ফ্রম হোম করতে গিয়ে শরীরের ক্ষতি করছেন না তো, তাহলেই বড় বিপদ...


গবেষকরা মনে করছেন ভারতের অন্য প্রান্তে যেমন এস-টাইপ করোনা ভাইরাস হানা দিয়েছে, গুজরাটে  এই ভাইরাসটি নিজের চরিত্র বদল করে এল-টাইপ ভাইরাসে সক্রিয় হচ্ছে। যা কিনা অনেকটাই বেশি খারাপ। দেশেরে মধ্যে সবথেকে বেশি মৃত্যু হয়েছে গুজরাটে। বিশেষজ্ঞরা আরও মনে করছেন এই ভাইরাস অনেক বেশি প্রাণঘাতী ও মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। এই এল-টাইপ ভাইরাসের  মারণ ক্ষমতাও অনেকটাই বেশি। এবং এই  এল-টাইপ স্টেইন সবথেকে বেশি উহাহেই দেখা মিলেছিল। যা নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন গবেষক থেকে চিকিৎসকরা।