করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও দুই জন ভারতী নাগরিকের সন্ধান পাওয়া গেছে। এক জন দিল্লির বাসিন্দা। অন্যজনের বাড়ি তেলেঙ্গনায়। দুজনেরই অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল। দুজনকেই কড়া পর্যবেক্ষণে রাখা আইসোলেশন বিভাগে রাখা হয়েছে বলেই জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। 

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক আরও জানিয়েছে বিদেশ থেকে সংক্রমণ ছড়িয়েছে দুই ভারতীয় নাগরিকের শরীরে। আক্রান্ত দিল্লির বাসিন্দা দিন কয়েক আগেই ইতালি থেকে ফিরেছেন। তেলেঙ্গনার বাসিন্দা বেড়াতে গিয়েছিলেন দুবাইতে। সেখান থেকেই তাঁরা সংক্রমিত হয়ে এসেছেন। এখনও পর্যন্ত ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন পাঁচ জন। 

আরও পড়ুনঃ দিল্লির হিংসায় পুড়ে যাওয়া বাড়ি মেরামতির জন্য জওয়ানকে দশ লক্ষ টাকার চেক বিএসএফ-এর

এরআগে কেরলের তিন জন ছাত্র করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিলেন। বর্তমানে তাঁরা সুস্থ হয়ে গেছেন বলেও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে। তিন জন ছাত্রকেই হাসপাতাল থেকে ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুনঃ অনুরাগ ঠাকুর, কপিল মিশ্রদের ঘৃণ্য মন্তব্যের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা শুনবে সুপ্রিম কোর্ট, বুধবার হব

চীন থেকেই প্রথম করোনাভাইরাসে ছড়াতে থাকে। বিমান বন্দরেই  চীন থেকে ফেরা শতাধিক ভারতীয়র স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা হয়েছে। সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের এক সপ্তাহ পর্যবেক্ষণের রাখা হয়েছে। চীনে রীতিমত মহামারির আকার নিয়েছে করোনাভাইরাস। মৃতের সংখ্যা পৌঁছে গেছে তিন হাজারের কাছাকাছি। প্রথম দিকে নিজের উদ্যোগে বিমান পাঠিয়ে করোনা আক্রান্ত একাধিক প্রদেশ থেকে ভারত দেশের ছাত্রছাত্রীদের ফিরিয়ে এনেছিল। কর্ম ও ব্যবসা সূত্রে চীনে থাকে এমন নাগরিকদেরও ফিরিয়ে আনা হয়েছিল। করোনার সংক্রমণ রুখতে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে ভারত। বয়স্ক ও শিশুদের ভিড় এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। মাস্ক ব্যবহারেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুনঃ সুপ্রিমকোর্ট খারিজ করল পবনের আবেদন, রাত পোহালেই নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি নিয়ে এখনও ধন্দ

এই মুহূর্ত করোনায় সংক্রমিত বিশ্বের ৫৮টি দেশ । বিশ্বের প্রায় ৯০ হাজার মানুষ আক্রান্ত করোনার জীবানুতে। ইউরোপেও রীতিমত ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। ইতালিতে দেড় হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত করোনাভাইরাসে। ফ্রান্সে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩০। চেক রিপাব্লিক, স্কটল্যান্ডেও করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া গেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।  করোনার প্রভাব পড়েছে শেয়ার বাজারেও। করোনা মোকাবিলায় পাকিস্তান সোমবার থেকেই আফগান সীমান্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অন্যদিকে ইরানের সঙ্গে সড়ক, রেল পথে যোগাযোগ স্থগিত রেখেছে।