সারা দেশে চলছে বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও অভিযান। কিন্তু তারপরেও দেশে কন্যা সন্তান, কন্যা ভ্রুন হত্যার হার ঠেকানো যাচ্ছে না। তা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। এরকমই একটা ঘটনার সাক্ষী হল হায়দরাবাদ। সদ্যোজাত কন্যা সন্তানকে কবর দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে ওই শিশুটির  বাবা ও দাদুকে সেকেন্দ্রাবাদ পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।  বৃহস্পতিবার একটা  অটো চালকের তৎপরতায়  সদ্যোজাত কন্যা সন্তানটি বেঁচে যায়। 

আরও পড়ুন বিমানবন্দরে আরডিএক্স ভরা ব্যাগ, চাঞ্চল্য রাজধানীতে, কিছুই বলতে পারছে না বম্ব স্কোয়াড

কুমার নামের সেকেন্দ্রাবাদের ওই অটোচালক বলেন,  'বাসস্ট্যান্ডের  পিছনে দুই ব্যক্তিকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখি। প্রবীণ ব্যক্তির হাতে কাপড়ে মোড়া কিছু একটা ছিল। অন্য ব্যক্তি মাটি খুঁড়ছিল। দেখেই আমার মনে হয়েছিল কোথাও গণ্ডোগল রয়েছে। আমি তখনই পুলিশে খবর দিই।' অভিযুক্তরা স্বীকার করেছে, সদ্যোজাত শিশুটিকে মাটিতে পোঁতার জন্য তাঁরা গর্ত খুঁড়ছিল।  সেকেন্দ্রাবাদের একজন পুলিশ আধিকারিক বলেন,  অভিযুক্তরা নিজেদের দোষ স্বীকার করেছে। জেরায় জানিয়েছে, তারা করিমগঞ্জ থেকে এসেছে। সেকেন্দ্রাবাদ হাসপাতালে ব্যক্তিটির স্ত্রী কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছে। তাকেই কবর দেওয়ার জন্য মাটি খুঁড়ছিল। 

আরও পড়ুন ফের কুলগামে হামলা, জ্বালিয়ে দেওয়া হল দুটি গাড়ি, অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন বিজেপি নেতা

সেকেন্দ্রাবাদের এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, 'আমরা যখন ঘটনাস্থলে পৌঁছই, কাপড়ে মোড়া শিশুটি হাত পা ছুঁড়ে কাঁদতে শুরু করে। আমাদের কাছে তখনই সব কিছু পরিষ্কার হয়ে যায়। অভিযুক্তরা জানিয়েছে, তারা কন্যাসন্তান চায় না। সেই কারণে শিশুটিকে জীবন্ত কবর দেওয়ার চেষ্টা করছিল।' পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে।