খুনের অভিযোগে হাজতবাসের মধ্যে জামিন পেয়েছিল সে। আর সেই সুযোগেই নিজের ছ' বছরের ভাগ্মীকে ধর্ষণ করে খুন করল এক ব্যক্তি। নৃশংস এই ঘটনাটি ঘটেছে গুজরাতের দাহোদ জেলার গারবদা এলাকায়। ইতিমধ্যেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ধৃত ব্যক্তির নাম শৈলেশ মাভি। একটি খুনের মামলায় শৈলেশকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। কিন্তু আট মাস আগে জামিনে ছাড়া পায় সে। আর সেই সুযোগেই এই ঘৃণ্য কাণ্ড ঘটায় মাভি। 

পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন. শুক্রবার বিকেলে যখন ওই শিশুটি স্কুল থেকে ফিরছিল তখনই তাকে মোটরসাইকেলে ঘোরানোর প্রলোভন দেখায় শৈলেশ। এর পরে শিশুটিকে একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করার পরে খুন করে সে। খুনের পর শিশুটির দেহ একটি পুকুরের কাছে পুঁতে দেয় শৈলেশ। 

 ওই শিশুটির বাবা- মা অন্যত্র শ্রমিকের কাজ করায় ঠাকুমার কাছেই থাকত সে। শিশুটি বাড়ি না ফেরায় তার ঠাকুমাই প্রথম পুলিশকে বিষয়টি জানান। কারণ শেষ বার নিজের নাতনিকে শৈলেশের মোটরসাইকেলে চড়ে যেতে দেখেছিলেন তিনি। শিশুটির ঠাকুমার থেকে এই তথ্য পেয়েই শৈলেশকে আটক করে জেরা শুরু করে পুলিশ। তখনই অপরাধের কথা কবুল করে শৈলেশ। উদ্ধার হয় শিশুটির দেহ। অভিযুক্ত শৈলেশকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।