প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতা স্বামী চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা উত্তর প্রদেশের আইন-ছাত্রীকেই এবার জুলুমবাজির দায়ে গ্রেফতার করল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। এলাহাবাদ কোর্ট তাঁর বিরুদ্ধে জুলুমবাজির মামলা না তোলায় স্থানীয় এক আদালতে তিনি গ্রেফতার-পূর্ববর্তী জামিনের আবেদন করেছিলেন। তার শুনানির হবে বৃহস্পতিবার। কিন্তু তার একদিন আগেই বুধবার তাঁকে গ্রেফতার করেছে যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ।

মঙ্গলবারও স্থানীয় আদালত থেকে বের হতেই তাঁকে পুলিশের গাড়িতে তুলে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। পরে অবশ্য ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর আদালত চত্ত্বরে তাঁকে প্রায় জোর করে টেনেহিঁচড়ে তুলে নিয়ে গিয়েছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ বলে অভিযোগ এদিন মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকে  অভিযোগ মেয়েটির পুলিশের। এমনকী জুতো পরার সময়টুকুও তাঁকে দেওয়া হয়নি বলে জানা গিয়েছে।

স্বামী চিন্ময়ানন্দের আশ্রম পরিচালিত আইন কলেজেই মেয়েটি পড়াশোনা করে। অগাস্ট মাসে তিনি একটি ভিডিও ফুটেজে চিন্ময়ানন্দ তাঁকে প্রায় একবছর ধরে যৌন হেনস্থা ও ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ করেছিলেন ২৩ বছরের ওই আইনপড়ুয়া তরুণী। তাঁর আরও অভিযোগ ছিল, পুলিশ প্রথমে ধর্ষণের অভিযোগ গ্রহণ করতে চায়নি।

গত সপ্তাহেই বিশেষ তদন্তকারী দল তরুণীর অভিযোগের ভিত্তিতে বিজেপি নেতা চিন্ময়ানন্দ-কে গ্রেফতার করে। সেই সঙ্গে চিন্ময়ানন্দের উপর অর্থ আদায়ের জন্য জুলুম করার অভিযোগে আরও তিন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর ওই তিন ব্যক্তির সঙ্গে ওই তরুণীর যোগ খুঁজে পান। সঞ্জয় সিং নামে এক আটক ব্যক্তির সঙ্গে চলতি বছরে ওই তরুণী অন্তত ৪২০০ বার ফোনে যোগাযোগ করেছেন বলে জানা গিয়েছে। এরপরই এদিন তাঁকে গ্রেফতার করা হল।