শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা। উত্তর প্রদেশের বারানসীর কৃষকরা চাষের কাজে ব্যবহার করবেন ড্রোন। ধীরে ধীরে সেই দিকেই এগিয়ে চলেছেন তাঁরা। কারণ এই এলাকার কৃষকরা চাষের কাজে ও ফসল বপনের জন্য় কী কী ভাবে ড্রোনের ব্যবহার করা যায় হাতেকলমে তারই পাঠনিতে শুরু করেছেন। গবেষক দলের কথায় আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, মেশিন লার্নিং এবং রিমোট সেন্সিং বৈশিষ্ট্যগুলিতে সজ্জিত ড্রোনের ব্যবস্থা ক্রমেই বাড়ছে। ড্রোনের ব্যবহারের মাধ্যমে মাটিতে শুঁটি, বীজে প্রয়োজনীয় পুষ্ঠি সরবরাহ করা যায়। তবে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করতে কম খরচে বেশি পরিমাণে ফসল পাওয়া যায় বলেও দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। 

বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব এগ্রিকালচারাল সায়েন্সের পরিচালক রমেশ চাঁদের নেতৃত্বে একটি বিশেষজ্ঞ দল তৈরি হয়েছে। তাঁরাই এই প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। আর সেইকারণেই তাঁরা সম্প্রতী পরিদর্শন করেন খুতাগান গ্রাম। সেখানের কৃষকদের চাষের কাজে ড্রোনের ব্যবহার করতে আগ্রহী করে তোলেন। বিশেষজ্ঞদের দাবি কৃষি কাজে ড্রোনের ব্যবহার করা হলে একদিনে খরচ যেমন কমবে অন্যদিকে কৃষি ক্ষেত্র দক্ষতা অনেকটাই বেড়ে যাবে। 

বিশেষজ্ঞ দলের প্রধান রমেশ চাঁদ বলেন, চাল গম প্রভৃতি শস্য় চাষের ক্ষেত্র ড্রোন ব্যবহার করা যায়। যেখানে ভেজা মাটির কারণে ট্রাক্টর ব্যবহার করা যায় না সেখানে ড্রোন ব্যবহার করতে কাজ অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। তিনি বালেন ধান গম চাষের জন্য মাটির প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। ধানের ক্ষেত্রে অল্প স্থির জলের প্রয়োজন রয়েছে। সেখানে গমের ক্ষেত্র প্রয়োজন আদ্রতাযুক্ত বায়ু ও তাপ। তারসঙ্গে ভারমাস্যযুক্ত মাটির প্রয়োজন। তিনি বলেন ড্রোনের ব্যবাহারের মাধ্যমে কৃষকরা একাধিক বাধা পেরিয়ে যেতে যেমন সক্ষম হন তেমনই কৃষিজাত ফসলের উৎপাদন বাড়িয়ে তুলতেও পারে। 

৬ মাসে নিম্নতম আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ড, ব্রিটেনের স্ট্রেন নিয়ে দেশের করোনা টাস্ক ফোর্সের বৈঠক ...

জল কামান নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কবিতা লিখলেন রাহুল গান্ধী, সমর্থন জানালেন আন্দোলনের অন্নদাতাদের ...
পাকিস্তানের বিরুদ্ধে একাধিকবার ড্রোনের মাধ্যমে অস্ত্র পাচারের অভিযোগ তুলেছে ভারত। ভারতের অভিযোগ ড্রোনের মাধ্যমে অস্ত্র পাঠিয়ে পাক-জঙ্গিদের মদত করা হচ্ছে। যদিও অভিযোগ বারবার সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। কিন্তু পাল্টা ভারত দেখিয়ে দিতে চাইছে উন্নত প্রযুক্তির ড্রোন ব্যবহার করে কী করে জনকল্যাণ করা যায়। আগামী দিকে ধীরে ধীরে দেশের অন্য প্রান্তেও ড্রোনের ব্যবহার ছড়িয়ে দেওয়া হবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা।