প্রয়াত হলেন কংগ্রেসের তিন বারের সাংসদ তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি নামগয়াল। আর তাতেই কেন্দ্র শাসিত এই অঞ্চলে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় আশঙ্কা করছে প্রশাসন। কারণ মৃত্যুর পর পি নামগয়ালের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তার আগে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে শেষশ্রদ্ধা জানাতে তাঁর বাড়িতে হাজির হয়েছিলেন প্রচুর মানুষ।

জানা যাচ্ছে, ৮৩ বছরর নামগয়াল সম্প্রতি দিল্লি থেকে লাদাখে ফেরেন। তারপর থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন তিনি। গত সোমবার শারীরিক কিছু জলটিলতা তৈরি হওয়ায় তাঁকে লেহের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ। এরপর বর্ষীয়াণ নেতাকে শেষশ্রদ্ধা জানাতে তাঁর বাড়িতে হাজির হন কংগ্রেস নেতা, কর্মী ও বহু সাধারণ মানুষ। এদিকে মৃত্যুর পরের দিন করোনা পরীক্ষার রিপোর্টে জানা যায় নামগয়াল কোভিড পজিটিভ ছিলেন। বিষয়টি সামনে আসতেই প্রশাসনের ঘুম উড়ে গিয়েছে। কোয়ারেন্টাইনে থাকা নামগয়ালকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে কীভাবে মানুষের ভিড় উপচে পড়ল তা নিয়ে তদন্ত করতে কমিটি গঠন করেছে লাদাখের কেন্দ্রশাসিত প্রশাসন।

আরও পড়ুন: দেশে আক্রান্তের সংখ্যা এবার ২ লক্ষ ছাড়িয়ে গেল, মৃতদের ৫০ শতাংশই ষাটোর্দ্ধ

ইতিমধ্যে নামগয়ালের বাড়ি ও সংলগ্ন এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোনে পরিণত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন লেহের জেলাশাসক সচিন কুমাপ বৈষ্য। বর্ষীযাণ কংগ্রেস নেতার পরিবারের সংস্পর্শে কারা এসেছিলেন তাদের সনাক্ত করা হচ্ছে। পাশাপাশি ২৮ মে যে ফ্লাইটে করে দিল্লি থেকে নামগয়াল ফেরেন সেই বিমানের সমস্ত কর্মী ও যাত্রীদের কোয়ারেন্টাইনে যেতে বলা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। পাশাপাশি তাদের করোনা পরীক্ষাও করা হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানান হয়েছে। গত মঙ্গলবার ৪ জনের শরীরে নতুন করে সংক্রমণ পাওয়া যাওয়ায় বর্কমানে লাদাখে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮১। যদিও নামগয়ালই করোনা সংক্রমণে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা লাদাখে।

এদিকে জাতীয় রাজধানী দিল্লিতে এবার করোনা সংক্রমণের শিকার হলেন এক বিচারক। দিল্লির রোহিনী আদালতের এক বিচারকের কোভিড ১৯ পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন রোহিনী বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি। ইতিমধ্যে আক্রান্ত বিচারক নিজেকে কোয়ারেন্টাইনে রেখেছেন। এর আগে ওই বিচারকের স্ত্রীও করোনায় আক্রান্ত হন। 

এমনিতেই জাতীয় রাজধানীতে করোনা সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১,২৯৮ জন। পলে দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২২ হাজার ১৩২। দেশে করোনা আক্রান্ত রাজ্যের মধ্যে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে জাতীয় রাজধানী। 

আরও পড়ুন: আরব সাগরে ৬ ফুট লম্বা ঢেউ ওঠার আশঙ্কা, ১৩৮ বছর পর ঘূর্ণিঝড় দেখছে মুম্বইবাসী

গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। ফলে জাতীয় রাজধানীতে করোনার বলি হলেন এখনও পর্যন্ত ৫৫৬ জন। দিল্লির স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত রাজধানীতে ৯,২৪৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এদের মধ্যে ৪৯৭ জনকে বুধবার মুক্তি দেওয়া হল। ফলে বর্তমানে দিল্লি সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১২,৫৭৩।