মাকে নৃশংসভাবে খুন করার অভিযোগ উঠল দুই নাবালক সন্তানের বিরুদ্ধে। পুলিশ জানিয়েছে বুধবার রাতে ভুবনেশ্বর এক ৪০ বছর বয়সী মহিলাকে তাঁর দুই সন্তান খুন করে বাড়ির পোষা কুকুর নিয়ে পালিয়ে যায়।কিন্তু আবাসনের প্রহরীদের তৎপরতায় ধরা পড়ে দুজনেই। মহিলার দেয় ময়নাতদন্তের জন্য পাঠান হয়েছে। দুই ছেলেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশের জেরায় দুই নাবালক সন্তানই মাকে হত্যা করার কথা স্বীকার করে নিয়েছে। দুই ছেলে বুধবার অনেক রাতে মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরেছিল। যা নিয়ে তীব্র আপত্তি জানিয়েছিলেন তাদের মা। আর সেই সময়ই মায়ের সঙ্গে ছেলেদের বচসা শুরু হয়। বিবাদের সময় মেজাজ হারিয়ে প্রথমে লোহার রড দিয়ে মাকে আঘাত করে দুই মদ্যপ সন্তান। তারপর মা অচৈতন্য হয়ে গেলে  মৃত্যু নিশ্চিত করতে একটি পলিথিনের ব্যাগ মুড়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে তারা। দেহটি ফ্ল্যাটের শৌচাগারে রেখে বাড়ির পোষা কুকুরটিকে নিয়ে পালিয়ে যায়। 

চিন লাদাখের ৩৮,০০০ কিলোমিটার এলাকা দখল করে রয়েছে, অরুণাচলেও নজর রয়েছে বলে জানালেন রাজনাথ ...

কতটা জানেন আপনি নরেন্দ্র মোদীকে, প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে প্রশ্নের উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরষ্কার ...

কিন্তু এখানেই শেষ নয়। খুনের দায় এড়াতে ঘণ্টাখানেক পরে তারা ফিরে আসে। আবাসনের সিকিউরিটি গার্ডেকে গিয়ে বলে ফ্ল্যাটের দরজা কেউ খুলছে না। তাদের মাকে খুন করা হয়েছে বলে সন্দহ করে। কিন্তু সিকিউরিটি গার্ড জানিয়েছিল তারা বেরিয়ে যাওয়ার পর কেউ তাদের ফ্ল্যাটে আসেনি। পাশাপাশি দেখা যায় ফ্ল্যাটের গেটে বাইরে দিক থেকে তালা দেওয়া রয়েছে। তারপরই খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশ এসে উদ্ধার করে মহিলার নিথর দেহ। 

এবার ট্যুইটারের কোপে চিনা ভাইরোলজিস্ট, যিনি দাবি করেছিলেন উহানের ল্যাবে তৈরি হয়েছে করোনার জীবাণু

নিহত মহিলার স্বামী রোরকেল্লায় কর্মরত। পরিবারটি সম্প্রতি ভুবনেশ্বরে এসেছিল। তবে দুই ছেলেই জানিয়েছে, মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফেরার পর তাদের মা তাদের ওপর শারীরিক নির্যাতন করতেন। মাঝে মাঝে তারাও মাকে মারধর করতে। এটা প্রায় দীর্ঘ তিন মাস ধরে চলছিল। পুলিশ জানিয়েছে দুজনকেই সংশোধনাগারে পাঠান হয়েছে। পাশাপাশি পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। খবর দেওয়া হয়েছে মৃতার স্বামীকেও।