নতুন কৃষি আইনের সমর্থনে সোমবার রাজ্যসভায় বক্তব্য রেখেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রীর  বক্তৃতার প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে কৃষক নেতা রাকেশ টিকাইত নূন্যতম সহায়ক মূল্য নিয়ে সরকার তাদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ তোলেন। তিনি বলেন আন্দোলনকারী কৃষকরা কখনই বলেনি যে নতুন আইনে নূন্যতম সহায়ক মূল্য বা এমএসপি নেই। তিনি বলেন আন্দোলনকারী কৃষকদের দাবি নূন্যতম সহায়ক মূল্য  নিয়ে একটি আইন পাশ করতে হবে। যদি তা হত তাহলেই কৃষকদের মঙ্গল। তিনি আরও বলেন বর্তমানে ব্যবসায়ীরা উৎপাদনের অর্ধেক মূল্য দিয়ে কৃষকদের লুঠ করছে। কেন্দ্র নতুন আইন ফিরিয়ে নিয়ে এমএসপি-র জন্য আইন তৈরি করলে সব সমস্যা হয়ে যাবে। এদিনই রাজ্যসভায় আশ্বাস দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এমএসপি ছিল, এমএসপি আছে আর এমএসপি থাকবে। আন্দোনকারী কৃষক নেতার দাবি এমএসপিকে সকল ফসলের গ্যারান্টি তৈরি করতে হবে। এমএসপি নিয়ে খালি বিবৃতি কৃষকদের কোনও কাজে আসবে না বলেও তোপ দাগের রাকেশ টিকাইত। 

প্রাইমা ফেসি হিমবাহ ঝুলে রয়েছে, বিপর্যয়ের কারণ দেখতে আকাশ পথে পরিদর্শন DRDO-র .

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর 'LAC' মন্তব্যকেই হাতিয়ার করল চিন, ভিকে সিং-এর মন্তব্য বুমেরাং হবে নাতো ...

এদিন রাকেশ টিকাইত বলেন, খুদা নিয়ে ব্যবসা করার অনুমতি কৃষকরা দেবে না। তিনি বলেন, খিদে বাড়লে ফসলের দাম বাড়বে। তাই এই বিষয়ে তাঁরা সহমত নন। যাঁরা খুদার জন্য ব্যবসা চায় তাদের দেশ থেকে বিতাড়িত করা হবে বলেও আক্রমণ করেন রাকেশ টিকাইত। তিনি বলেন যেভাবে বিমানের টিকিটের দাম দিনে তিন থেকে চারবার ওঠানামা করে সেভাবে ফসলের দাম বাড়ানো কমানোর সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া হবে না। যদিও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এদিন দাবি করেছেন দরিদ্রদের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যের রেশন অব্যাহত রাখতে থাকবে। মান্ডি প্রথাকে আধুনিকীকরণ করতে হবে। 

এদিন রাকেশ টিকাইত কিছুটা চড়া সুরেই কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করেন। তিনি কৃষকদের আন্দোলনকে জাতি বর্ণ আর ধর্মের ভিত্তিকে বিভক্ত করার চেষ্টার তীব্র সমালোচনা করেন। তিনি বলেন এখন অনেক কৃষক চলে গেছেন। তাদের জায়গায় নতুন কৃষক আন্দোলনে অংশ নিচ্ছেন। স্থানীয় গ্রামের মানুষরাও কৃষকদের এই আন্দোলনকে সমর্থন করছেন।  একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন কৃষকদের সমস্যা সমাধানের জন্য তাঁরা সর্বদা আলোচনার জন্য প্রস্তুর রয়েছেন। তবে এটি আনুষ্ঠানিক চ্যানেলের মাধ্যমে হওয়া জরুরি বলেও দাবি করেছেন তিনি। তিনি বলেন আলোচনার মাধ্যমেই যে কোনও সমস্যা সমাধাত করা সম্ভব। আলোচনা শুরু করার জন্য তাঁরা নীতিগতভাবে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন তিনি।