শনিবার খাদ্য সরবরাহকারী অনলাইন প্ল্যাটফর্ম জোম্যাটো তাদের ৫৪১ জন কর্মীকে ছাঁটাই করার কথা ঘোষণা করেছে। কাস্টমার সাপোর্ট, মার্চেন্ড সাপোর্ট, ডেলিভারি পার্টনার সাপোর্ট বিভাগ মিলিয়ে সংস্থার মোট ১০ শতাংশ কর্মীকেই ছেঁটে ফেলা হচ্ছে। অটোমেশন বা স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রের ব্যবহারের জন্যই এত কর্মীকে একসঙ্গে ছাঁটাই করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

এতদিন জোম্যাটোতে গ্রাহকদের অর্ডার নেওয়া তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেওয়া, তাদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান, অভাব-অভিযোগ শোনোর কাজ জোম্যাটোর কর্মীরাই করতেন। কিন্তু সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে গত কয়েক মাসে তাদের প্রযুক্তিগত অভাবনীয় উন্নতি হয়েছে। তাই এখন থেকে সরাসরি অর্ডার সংক্রান্ত বিষয়গুলি সামলানো হবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা এআই-এর মাধ্যমেই।

আরও পড়ুন - 'খাবারই ধর্ম'-জোমাটোর উত্তরে চাপের মুখে কী করলেন এই হিন্দু গ্রাহক

আরো পড়ুন - হালাল বনাম ঝটকা, ফের খাদ্যের ধর্মবিচার! জোম্যাটোর পর বিপাকে ম্যাকডোনাল্ডস

আরো পড়ুন - জোমাটোর সাহায্যে খাবার নয়, নিজেই বাড়ি পৌঁছলেন যুবক

আরো পড়ুন - গরু, শুয়োরের মাংস নিয়ে আপত্তি, সোমবার থেকে ধর্মঘটে জোম্যাটোর ডেলিভারি বয়রা 

সংস্থার দাবি এআই ব্যবস্থা ব্যবহার করে অনেক দ্রুত গ্রাহক সমস্যার সমাধান করা যাচ্ছে। এতে করে সমস্যার পরিমাণও ক্রমে কমছে। গত মার্চ মাসে ১৫ শতাংশ অর্ডারের ক্ষেত্রে সমস্যা নিয়ে সংস্থার দ্বারস্ত হতেন গ্রাহকরা। এখন তা নেমে এসেছে ৭.৫ শতাংশে। এর জন্য তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে বেশ কিছু নতুন লোক নিয়োগ করা হচ্ছে। কিন্তু কাজ হারাচ্ছেন সরাসরি অর্ডার নেওয়ার সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা।

জোম্যাটোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এই সিদ্ধান্তটা কঠিন ছিল, কিন্তু ব্যবসার কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত তাদের নিতেই হয়েছে। ছাঁটাই কর্মীদের আগামী দুই মাসের সার্ভেলেন্স পে দেওয়া হচ্ছে। ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসের শেষ পর্যন্ত তাঁরা সংস্থার পক্ষ থেকে পরিবারের জন্য স্বাস্থ্য বিমাও পাবেন। অন্য সংস্থায় যাতে তাঁরা সুযোগ পান তার জন্যও সহায়তা করা হবে সংস্থার পক্ষ থেকে।