ফের ভয়াবহ ভূমিকম্পের কবলে পড়ল জাপান। শনিবার, ৭.২ মাত্রার জোরালো ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে গোটা দেশ, এমনটাই জানা গিয়েছে। ভূমিকম্পের উৎস জাপানের উত্তর-পূর্ব উপকূলীয় অঞ্চলে। স্বাভাবিকভাবেই, সুনামির সতর্কতাও জারি করা হয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, ৩ ফিট উচ্চতারও বেশি উঁচু ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে।    

জাপানের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের তীব্রতা ছিল ৭.২। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভূমিকম্পের পরপরই সুনামির প্রথম তরঙ্গটি জাপানর উপকূলে আঘাত হেনেছে। ঢেউ-এর উচ্চতা ছিল, প্রায় ৩.২ ফুট। তবে তবে সেই খবরের সত্য়তা যাচাই করা যায়নি। সংবাদ সংস্থা এএফপি জানিয়েছে , স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা বেজে ৯ মিনিটে এই ভূমিকম্পের ঘটনাটি ঘটে। মিয়াগি নামে জাপানের উত্তরপূর্বের এক অঞ্চলে, ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার গভীরতায় ভূমিকম্পটির এপিসেন্টার।

বড় মাপের সুনামি যদি নাও আসে, তা সত্ত্বেও এই ভূমিকম্পে বড় ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। পরমাণু কেন্দ্রগুলি পরিদর্শন করা হচ্ছে। এছাড়া, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বুলেট ট্রেন পরিষেবাও। জাপানি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সুনামির সতর্কতা জারির পরে, উপকূলীয় অঞ্চলে বাসিন্দারা দ্রুত উচ্চস্থানে চলে গিয়েছেন। এখনও পর্যন্ত কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

জাপান পৃথিবীর টেকটোনিক প্লেটগুলির সীমান্তবর্তী 'রিং অফ ফায়ার' এলাকায় অবস্থিত। এই অঞ্চলটি বিশ্বের অন্যতম ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকা হিসাবে পরিচিত। ফলে প্রায়শই ভূমিকম্পের কবলে পরে এই দেশ। এর আগে প্রায় ১০ বছর আগে, ২০১১ সালের ১১ মার্চ একটি ভয়ানক ভূমিকম্পে তছনছ হয়ে গিয়েছিল জাপান। রিখটার স্কেলে তার মাত্রা ছিল ৯। তারপর আছড়ে পড়েছিল বিশাল সুনামির ঢেউ। বহু মানুষের প্রাণ গিয়েছিল সেই সুনামিতে।