পাঁচ বছর ভালোবাসার সম্পর্কে থাকার পর নিজের প্রেমিকাকে কুপিয়ে খুন করল দুবাইয়ের বাসিন্দা এক ভারতীয় যুবক। এখানেই শেষ নয়। মৃত প্রেমিকার দেহ গাড়ির সামনে সিটে বসিয়ে প্রায় ৪৫ মিনিট ধরে ঘুরে বেড়িয়েছিল গোটা শহর। পুলিশের চোখে ধুলো দেওয়া কোনও চেষ্টাই নাকি সে করেনি। কিন্তু তারপরেও দুবাই পুলিশের কোনও হেলদোল দেখতে না পেয়ে নিয়েই থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে ভারতীয়। গত জুলাই মাসেই দায়ের হওয়া এই খুনের মামলার শুনানি হয় রবিবার। 

আরও পড়ুনঃ কমল নাথকে স্বস্তি দিল না বিজেপি, মধ্যপ্রদেশে আস্থা ভোটের দাবি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে

দুবাই পুলিশ জানিয়েছে, জুলাই মাসের এক  রাতের ঘটনা। জামায় রক্তমাখা অবস্থায় ভারতীয় যুবক তার কাছে আসে। সেখানেই যে জানায় গাড়ির সামনে সিটে বসে থাকা মহিলা মৃত। যুবকই মহিলাকে খুন করেছে স্বীকার করে নেয়। মৃত মহিলার সঙ্গে তাঁর দীর্ঘ পাঁচ বছেরের সম্পর্ক বলেও জানিয়েছিল পুলিশকে। তারপরই পুলিশ উদ্ধার করে মৃত মহিলার দেহ। প্রথমিক পরীক্ষার পর দেখা যায় মৃতার ঘাড়ে রয়েছে গভীর ক্ষত চিহ্ন। তখন অভিযুক্ত যুবকই পুলিশ কর্মীর সামনে নিয়ে আসে খুনের অস্ত্র। জানিয়েদেয় এই ছুরি দিয়ে ঘাড়ে একাধিকবার কোপ মারার পরই মৃ্ত্যু হয়েছে মহিলার। 

আরও পড়ুনঃ মধ্যপ্রদেশে হচ্ছে না আস্থা ভোট, ১০ দিনের স্বস্তিতে কমল নাথ

অত্যান্ত কড়া ও সচেতন হিসেবেই পরিচিত দুবাই পুলিশ। কিন্তু অভিযুক্ত যুবক জানিয়েছিল প্রেমিকার মৃতদেহ নিয়ে সে প্রায় ৪৫ মিনিট ঘুরে বেড়িয়েছে দুবাইয়ের রাস্তায় রাস্তায়। বেশ কয়েকটি মল ও পুলিশ কিয়স্কের সামনে দিয়েও গেছে। কিন্তু একবারের জন্য কোনও পুলিশ তাকে সন্দেহ করেনি। প্রতেক্যবারই তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তাই বাধ্য হয়ে অভিযুক্তকে থানায় আসতে হয়েছে জানিয়েছে ভারতীয় যুবক। 

আরও পড়ুনঃ ইয়েস ব্যাঙ্ককাণ্ডে ইডির সমন রিলায়েন্স গ্রুপের প্রধান অনিল অম্বানিকে

কিন্তু কেন খুন করল পাঁচ বছরের পুরনো বান্ধবীকে ? জেরায় অভিযুক্ত সেই প্রশ্নের উত্তরও দিয়েছে স্পষ্ট করে। জানিয়েছে, গত পাঁচ বছর মহিলার সঙ্গে তার সম্পর্ক রয়েছে। কিন্তু বর্তমানে আরও এক নতুন পুরুষ বন্ধু  এসেছিল তার প্রেমিকার জীবনে। যার সঙ্গে প্রায়ই বেড়াতে যেত। একাধিকবার সম্পর্ক ছেড়ে বেরিয়ে আসার কথা বলেও কোনও লাভ হয়নি। মহিলার নিকট আত্মীয়দেরও হুমকি দিয়েছিল। জানিয়েছিল নতুন সম্পর্ক ছেড়ে বেরিয়ে না আসলে তাদের মেয়েকে খুন করে ফেলবে। সেই মতই ভারতীয় যুবক তার বান্ধবীকে খুন করেছে বলেও দ্বিধাহীন কণ্ঠে জানিয়েছিল পুলিশকে। 

জেরায় ভারতীয় যুবক জানিয়েছে, একটি শপিং মলের সামনেই প্রেমিকার সঙ্গে তার বচসা বাঁধে। তারপরে সেই পাব্লিক প্লেসেই প্রেমিকাকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে খুন করে। গাড়ির সামনের সিটে বসিয়ে প্রথমে সে নাকি একটি হোটেলে গিয়েছিল। সেখান থেকে খাবার খেয়েই  শুরু করে তার দুবাই সফর। অভিযুক্তের মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানান হয়েছে।