এই জগতের অনেক কিছুই আমাদের বিস্ময় তৈরি করে। মানুষের সঙ্গে পশু-পাখিদের সম্পর্কও অনেক সময়ই আমাদের অবাক করে। প্রাণীদের বুদ্ধির উদাহরণ আমরা অনেকবার পেয়েছি। তাদেরও রয়েছে নিজস্ব আবেগ, অনুভূতি এবং সৃজনশীলতা। রয়েছে শিল্প-সংস্কৃতির বোধ। 

 

 

তারই যেন জ্বলন্ত উদাহরণ এক অন্ধ হাতি। সঙ্গীতের মূর্ছনায় তাল মিলিয়ে নেচে ওঠে সেও। হাতিদের জন্য অভয়ারণ্যে  পিয়ানো বাজাচ্ছিলেন ব্রিটিশ মিউজিশিয়ান পল বার্টন। তার সেই ক্ল্যাসিকাল সঙ্গীতের তালে পা মেলায় লাম ডুয়ান নামে অভয়ারণ্যের এক অন্ধ হাতি।

স্ত্রী হাতিটি এখন নিয়মিত সঙ্গীত শুনতে হাজির হয় পলের কাছে। পিয়ানোর তালে তালে সেও নাড়াতে থাকে নিজের শুঁড়। এমনকি বিশাল শরীর নিয়ে পাও দোলাতে দেখা যায় তাকে। 

৬২ বছরের লাম ডুয়ানের সেই সুরের তালে নেচে ওঠা ভিডিও নিজের ইউটিউবে শেয়ার করেছেন পল। জীবনের অধিকাংশ সময়ই অন্ধকারে কেটেছে লামের। পৃথিবীর আলো দেখতে না পেলেও সঙ্গীতের স্বাদ একটুও সময় নষ্ট করে না সে।

কোয়াই নদীর তীরে নিজের চ্যানেলের জন্য ভিডিও শ্যুট করার সময়ই অভয়ারণ্যের বুড়ো, অসুস্থ, প্রতিবন্ধী হাতিগুলির সঙ্গে পরিচয় হয় বার্টনের। তারপর থেকেই তাদের সঙ্গে বন্ধুত্বের শুরু এই মিউজিশিয়ানের। তারপর থেকেই নিয়মিত হাতিদের পিয়ানো বাজিয়ে শোনান তিনি। 

 

লাম ডুয়ানের সঙ্গে তার সঙ্গীরাও নিয়মিত আসে বার্টেনর পিয়ানো শুনতে। এমনকি অনেকে সঙ্গীতের সঙ্গে গানও ধরেন। আর সেই হাতির গান শুনে মুগ্ধ সকলেই। প্লারা নামে একটি হাতিকে বার্টনের সঙ্গে থাইল্যান্ডের বিখ্যাত বাঁশি বাজাতেও দেখা গেছে।