দিন যতই যাচ্ছে বিশ্বে ততই নিজের দাপট বাড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। ইতিমধ্যে পৃথিবীর ১৬০টির বেশি দেশে পৌঁছে গেছে এই মারণ ভাইরাস। ভারতেও নিজের জাল বিছিয়েছে এই মারণ ভাইরাস। এদেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এই অবস্থায় করোনা ভাইরাসকে নিয়ে ছড়াচ্ছে নানা গুজব। অনেক জায়গা থেকেই দাবি করা হচ্ছে গরম পড়লে তেমন ভাবে সক্রিয় থাকে না এই মারণ ভাইরাস। করোনাকে নিয়ে তৈরি হওয়া এই বিভ্রান্তি দূর করতে এবার স্বয়ং আসরে নেমেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা 'হু'।

আরও পড়ুন: কোন ব্লাড গ্রুপে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি, গবেষণায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

গত বছর ডিসেম্বরে চিনের উহানে প্রাদুর্ভাব ঘটা ভাইরাসটে ঘন ঘন নিজের চরিত্র বদলে চলেছে। তাই ঠান্ডা ও শীতের মত গরম ও আর্দ্রু জলবায়ুতেও সমান সক্রিয় থাকবে কোভিড-১৯ ভাইরাস বলে স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছে হু। ফলে যথাযথ ব্যবস্থা না নিলে  গরমের দেশেও ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ার প্রভূত সম্ভাবনা রয়েছে। 

 

 

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে ছড়িয়ে পড়া গুজব ও মিথের জবাব দিতে ফিলিপাইন্সের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে একটি ট্যুইট করা হয়েছে। যেখানে হু স্পষ্ট করে জানিয়েছে, "যেখানেই বাস করা হোক, সেটা ঠান্ডা বা আর্দ্র জলবায়ু হোক না কেন, সতর্ক থাকতে হবে।"

আরও পড়ুন: খাদ্য রসিকদের জন্য দুসংবাদ, করোনা আতঙ্কে এবার বন্ধ দেশের সমস্ত রেস্তোরাঁ

করোনা আতঙ্কের মাঝেই ছড়িয়ে পড়েছে অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় মানুষকে এই মারণ ভাইরাস থেকে রক্ষা করতে পারে। এ ব্যাপের 'হু'-এর মত, জল খেলে শরীর হাইড্রেড হয়। এটা স্বাস্থ্যের জন্য ভাল হলেও এতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধ করা যায় না। তাই কারও ঠান্ডা লাগলে এবং জ্বক, সর্দি ও শ্বাসকষ্ট হলে তাঁকে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। 

তাই করোনা রুখতে অ্যালকোহল পানের কোনও যৌক্তিকতা নেই বলেই জানাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সেইসঙ্গে অ্যালকোহল পরিমিত পরিমাণেই খাওয়া উচিত বলে স্পষ্ট করেছে 'হু'। পাশাপাশি যেসমস্ত ব্যক্তি অ্যালকোহল পান করেন না তাঁদের  করোনা  সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে  মদ্যপানের প্রয়োজনীয়তা নেই বলেই উল্লেখ করা  হয়েছে।