তিন মিনিট আগে বিয়ে করেছেন। স্বামীকে ডিভোর্স দিতেও বেশি সময় নিলেন না এক মহিলা।  শুনতে অবিশ্বাস্য লাগলেও, এমনই ঘটনা ঘটেছে কুয়েতে। সেদেশের ইতিহাসে এত স্পল্প মেয়াদের আর হয়নি বলে জানা গিয়েছে।

কিন্তু কেন এমনটা হল? কুয়েতে আদালতে গিয়ে বিচারকের সমানে বিয়ের চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করতে হয় পাত্র ও পাত্রীকে। এক্ষেত্রে তার ব্য়তিক্রম ঘটেনি। কিন্তু চুক্তিপত্র স্বাক্ষর করে যখন আদালত কক্ষ বেরোচ্ছিলেন ওই দম্পতি, তখনই ঘটে বিপত্তি। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, আদালতের কক্ষের বাইরে হোঁচট খান সদ্য বিবাহিতা ওই তরুণী। কিন্তু সাহায্য করা তো দূর, স্ত্রীকে নিয়ে রীতিমতো মসকরা করেন ওই তরুণীর স্বামী, 'বোকা' বলে কটাক্ষও করেন।  এরপরই রাগে ফুঁসতে ফুঁসতে ফের আদালত কক্ষে ফিরে যান ওই তরুণী ও বিচারকের কাছে তক্ষুনিই বিবাহ-বিচ্ছেদের আবেদনও জানান। বিয়ের মাত্র তিন মিনিটের মধ্যেই বিচ্ছেদও হয়ে যায় ওই দম্পতির! 

আরও পড়ুন: শরীরের সব অঙ্গ দেখিয়ে ছাত্র পড়ালেন শিক্ষিকা, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ছবি

আরও পড়ুন: নতুন বছরে বিয়ের পিড়িতে বসার আগে করতে হবে কোর্স, বাধ্যতামূলক সরকারি শংসাপত্র

সত্যি কথা বলতে, এখন গোটা বিশ্বেই এখন ডিভোর্সের ঘটনা বাড়ছে। সামান্য মনোমালিন্য কিংবা বোঝাপড়ার অভাবের কারণে বিচ্ছেদের পথে হাঁটতে দ্বিধা করছেন না অনেক দম্পতিই। কিন্তু তা বলে বিয়ের মাত্র তিন মিনিটের মধ্যে ডিভোর্স! ঘটনার শোরগোল পড়ে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে ওই বধূর সিদ্ধান্তকে সমর্থনই করেছেন নেটিজেনদের একটি বড় অংশ, বিশেষ করে মহিলারা। কেউ লিখেছেন, 'সম্পর্কের শুরুতেই যদি স্বামী এমন ব্যবহার করেন, তাহলে তাঁকে ছেড়ে চলে আসাই ভালো।' কারও মতে আবার, 'স্বামী ও স্ত্রী যদি একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হন, তাহলে দাম্পত্য কখনই সুখের হতে পারে না।'