গত ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবলীলা দেখেছে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা। সুপার সাইক্লোন তছনছ করে দিয়ে গিয়েছে এমনিতেই করোনায় বিদ্ধ বাংলার একাধিক জেলাকে। সবচেয়ে করুণ অবস্থা দুই চব্বিশ পরগনার। ঘূর্ণিঝড়ের ২ সপ্তাহ পার করেও এখনও জলমগ্ন হয়ে রয়েছে সুন্দরবনের বিস্তির্ণ অঞ্চল। বড় বড় গাছ উপড়ে অবরুদ্ধ রাজপথ, নদীবাঁধের পাশে ভেঙেচুরে পড়া হাজার হাজার ঘর – তাণ্ডবের সেই ছবি দেখে শিউড়ে উঠেছিল গোটা বিশ্ব। সেই ছবি চোখ এড়িয়ে যায়নি ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোরও। পরিস্থিতির ভয়াবহতা সম্যক উপলব্ধি করেছিলেন তিনি। নদী বাঁধের পাশে ভেঙ যাওয়া হাজার হাজার ঘর, উপড়ে পড়া গাছ মর্মাহত করেছে তাঁকে। আর তাতেই এবার আমফান বিধ্বস্ত বাংলাকে সাহায্য করতে হাত বাড়ালেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর। 

 

 

আমফান পরবর্তী পরিস্থিতিতে পুনর্গঠনের যে কোনও ধরণের কাজে ভারতের পাশে দাঁড়াতে চায় ফ্রান্স। সেই কথা জানিয়ে সম্প্রতি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোর।সূত্রের খবর, প্রাথমিক ভাবে ২০০ মিলিয়ন ইউরো ভারতকে সাহায্যের জন্য দেওয়া হবে বলে স্থির করেছে ফরাসি সরকার। বিশ্ব ব্যাঙ্কের মাধ্যমে সেই অর্থ পাঠানো হবে। সেইসঙ্গে ফ্রান্সের জনগণের তরফে ম্যাক্রোর আমফান বিধ্বস্ত পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশাবাসীর প্রতি আন্তরিক সমবেদনাও প্রকাশ করেছেন। 

 

 

বরাবরই আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারত পাশে পেয়ে এসেছে ফ্রান্সকে। জঙ্গি হামলার বিরোধিতা থেকে শুরু করে একাধিক বিষয়ে ভারতের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়েছে ফরাসি সরকার। তাই নিজের দেশ করোনায় কাবু হলেও বন্ধুত্ব বজায় রাখতে ভরাতের কঠিন সময়ে সাহায্যের হাতি বাড়িয়ে দিলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট।