দেবী দুর্গার ছবিকে বিকৃত করে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপত্তিকর পোস্ট। আর তা নিয়েই সরগরম। বিতর্ক চাপা দিতে শেষপর্যন্ত ক্ষমা চাইতে হল  ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর বড় ছেলে ইয়াইরকে।

ইজরায়েলের আদালতে প্রধানমন্ত্রী  নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা চলছে। তার ছেলে ইয়াইর বরাবরই বাবার আদর্শ ও বিশ্বাস সোশ্যাল মিডিয়ায়  প্রচার করে বেড়ান। আর এবার সেই প্রচার করতে গিয়েই নিজের বিপদ ডেকে আনলেন ইয়াইর। নেতানিয়াহুর উকিল লিয়াত বেন আরিকে হিন্দু দেবী দুর্গার সঙ্গে তুলনা করেন তিনি।  টুইটে তিনি দেবী দুর্গার মুখের জায়গায় লিয়াত বেন আরিকের মুখ বসান। যা নিয়েই তৈরি হয় তুমুল বিতর্ক।

আরও পড়ুন: দীর্ঘ সফরে মাঝ আকাশে ফুয়েল ভরল রাফাল, কাউন্টডাউন শুরু আম্বালার বায়ুসেনা ঘাঁটিতে

ঘটনার সূত্রপাত গত রবিবার। সেদিনই নিজের ট্যুইটারে আইনজীবী  লিয়াত বেন আরিকের মুখ বসানো দেবী দুর্গার ছবি পোস্ট করেন ইয়াইর। লিয়াতের মুখ বসানো দেবীর ওই ছবিতে ১০টি হাতের ভঙ্গিমাতেও অশ্লীল ইঙ্গিত ছিল। যা দেখে স্বভাবতই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে একাংশ ভারতীয়। ইয়াইরের নিন্দা শুরু হয়। 

মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়াতেই পোস্ট করে সেজন্য ক্ষমা চেয়ে ইয়াইর লেখেন, ‘‌আমি ইজরায়েলের রাজনৈতিক চরিত্রগুলির সমালোচনা করে একটি ব্যঙ্গাত্মক মিম্‌ পোস্ট করেছিলাম। আমি বুঝতেই পারিনি ওই মিম্‌টি হিন্দুদের মহান বিশ্বাসের কোনও ছবি। যখনই আমি আমার কয়েকজন ভারতীয় বন্ধুদের কাছে তা জানতে পেরেছি, তৎক্ষণাৎ সেই ট্যুইট সরিয়ে দিয়েছি। আমি ক্ষমাপ্রার্থী।’‌ 

 

 

ইরাইর আরেকটি টুইটে বলেন, আমি সবসময় হাস্যরসাত্মক টুইট করি। মাঝে মাঝে ইসরায়েলের রাজনৈতিক নেতাদের নিয়ে মজা করতে বিভিন্ন টুইট দেই। লিয়াত বেন আরিককে নিয়ে দেয়া টুইটটিও আমি মজার ছলেই দিয়েছিলাম।

ওই মিম্‌–এ ইজরায়েলের ডেপুটি স্টেট অ্যাটর্নি জেনারেল লিয়াতের মুখ দেবীর মুখের সঙ্গে এবং অ্যাটর্নি জেনারেল আভিচাই মান্ডেলবিটের মুখ দেবীর বাহন বাঘের মুখে সুপারইম্পোজ করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন: দক্ষিণ চিন সাগরে যুদ্ধ পরিস্থিতি, লাল ফৌজের মহড়া দেখতে সাংহাইয়ের আকাশে চক্কর মার্কিন যুদ্ধ বিমানের

এদিকে, এই ঘটনায় দ্বিধাবিভক্তি নেটিজেনরা। অনেকেই  ইয়াইরকে রীতিমতো তুলোধোনা করেছেন। আবার অনেকে মনে করছেন নেতানিয়াহু পুত্রের উদ্দেশ্য খারাপ ছিল না। হিন্দু ধর্মের বিষয়ে না জানার কারণেই এই কাণ্ডটি ঘটিয়ে ফেলেছেন তিনি। তবে ভুল বুঝতে পেরে সরাসরি ক্ষমা চেয়ে তিনি যে সাহসের পরিচয় দিয়েছেন, তা নিয়ে অনেকেই প্রশংসা পঞ্চমুখ হয়ে উঠেছেন নেতানিয়াহুর পুত্রের।

তবে এই প্রথম নয় এর আগেও ইয়াইর সোশ্যাশ মিডিয়ায় বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন। চলতি মাসের  শুরুতেই নেতানিয়াহু পুত্র ইসরায়েলি সাংবাদিক ডানা উইসকে নিয়ে বিতর্কিত এক ট্যুইট করেনয যদিও পরে এর জন্য ২৯ বছরের ইয়াইর ক্ষমা প্রার্থনা করেন।