বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফুলের সন্ধান মিলল ইন্দোনেশিয়ার জঙ্গলে। এমনিতেই বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম ফুল হিসেবে পরিচিত দৈত্যাকার 'রাফলেসিয়া তুয়ান-মুদে'। এবার তার সবচেয়ে বড় ফুলটা ফুটেছে বলে দাবি ইন্দোনেশিয়ার বন সংরক্ষণবিদদের। তাঁদের দাবি মতো এই ফুলটির ব্যাস ১১১ সেন্টিমিটার বা ৩.৬ ফুট।

বেশ কয়েক বছর আগে পশ্চিম সুমাত্রার জঙ্গলে একটি 'রাফলেসিয়া তুয়ান-মুদে' ফুটেছিল, যার ব্যাস ছিল ১০৭ সেন্টিমিটার। এতদিন এটিই বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আকারের ফুল হিসেবে নথিভুক্ত ছিল। তবে সুমাত্রার আগম সংরক্ষণ সংস্থার মুখপাত্র টিতে আদে পুত্রা জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত নথিভুক্ত হওয়া সবচেয়ে বড় রাফলেসিয়া তুয়ান-মুদে ফুল এটিই।

উনিশ শতকের গোড়ার ইন্দোনেশিয়ার জঙ্গলে এই দৈত্যাকৃতি ফুল প্রথম আবিষ্কার করেছিলেন ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক স্যার স্ট্যামফোর্ড রাফেলস। তাঁর নাম থেকেই এই ফুলের নামকরণ করা হয়েছিল রাফেলসিয়া। এটি দেখলে মনে হয় একতাল লাল মাংস। এর বিশাল বিশাল পাপড়িগুলিতে সাদা ফোসকার দাগ রয়েছে। শুধু ইন্দোনেশিয়া নয়, এই প্রজাতির পুল ফিলিপাইন্স সহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশে পাওয়া যায়।

ফুলটি ফোটার পর প্রায় এক সপ্তাহ থাকে। তারপর এতে পচন ধরে। আর পচন ধরলেই এই ফুল থেকে পচা মাংসে গন্ধ বের হয়। সেই গন্ধেই পোকামাকড় আকৃষ্ট হয়। ওই পোকামাকড়ের থেকেই খাদ্য সংগ্রহ করে গাছটি। এর জন্য এই ফুল 'মৃতদেহের ফুল' নামেও পরিচিত। এইরকম পচা মাংসের গন্ধে পোকামাকড়-কে আকৃষ্ট করে এরকম আরও একটি দৈত্যাকার ফুল ফোটে ইন্দোনেশিয়ায়। তার নাম এমরফোফালাস টাইটানিয়াম। এটি দেখতে হয় পুরুষ গোপনাঙ্গের মতো। এটি উচ্চতায় তিন মিটার বা ১০ ফুট পর্যন্ত হতে পারে।