করোনাভাইরাস নিয়ে প্র্য়াঙ্ক ভিডিয়ো বানাতে গিয়েছিলেন এক যুবক। আর, পাঁচবছর জেলে  যাওয়ার মখোমুখি হয়ে সেই ফাজলামির মূল্য় চোকাতে হচ্ছে তাঁকে।

কী ঘটেছিল?

রাশিয়াতে মেট্রো রেলে উঠেছিলেন তাজাকিস্তানের ওই যুবক। আচমকাই সহযাত্রীরা দেখেন, মাস্ক পরা ওই যুবক হঠাৎ পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারাচ্ছেন। প্রবল খিঁচুনি হচ্ছে তাঁর। তাঁর বন্ধুরা তখন বলছেন, ওই যুবক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। গোটা কামরার যাত্রীরা তখন আতঙ্কিত হয়ে ছোটাছুটির উপক্রম করছেন।

 

পরে অবশ্য় জানা যায়, ওই যুবকটি রীতিমতো মশকরা করছিলেন তাঁর সহযাত্রীদের সঙ্গে। জানা যায়, করোনাভাইরাস নিয়ে একটি প্রাঙ্ক ভিডিয়ো বা মশকরা ভিডিয়ো তৈরি করছিলেন ওই যুবক। রাশিয়ান পুলিশ ওই যুবককে গ্রেফতার করে। তাজাকিস্তান থেকে আসা ওই যুবকের নাম কারমাতুল্লো জাবোরভ।

 

জাবোরভকে রাশিয়ান পুলিশ গুণ্ডামোর অভিযোগে গ্রেফতার করে বলা জানা গিয়েছে। গত ২ ফেব্রুয়ারি প্র্য়াঙ্ক ভিডিয়োটি সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন জাবোরভ। তার ছ-দিন পর, ৮ ফেব্রুয়ারি তাঁকে আটক করে রাশিয়ান পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে যে ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে, তাতে করে জাবোরভের সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের জেল হতে পারে। যদিও তাঁর আইনজীবী আদালতে সওয়াল করেছেন, জাবোরভের অন্য় ভিডিয়োর থেকে এই ভিডিয়োকে আলাদা করে দেখা ঠিক নয়। এই ভিডিয়োটি কার্যত মানুষকে করোনাভাইরাসের লক্ষণ নিয়ে সচেতন করতেই তৈরি করা হয়েছিল। এই ভিডিয়ো তৈরির আরও উদ্দেশ্য় ছিল। যেমন, ফার্মাসিগুলো কেমন চড়া দামে মাস্ক বিক্রি করছে। কার্যত সমস্য়াগুলো নিয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চেয়েছিলেন।

এখন দেখার, আইনজীবীর এই যুক্তি শুনে আদালতের মন কতটা গলে। তবে গললে ভাল, না-গললে ঘোর বিপদ। স্রেফ ফাজলামি মারার অপরাধে এবার পাঁচ বছরের জন্য় জেলে যেতে হবে ওই যুবককে।