সতিনের কাছে স্বামীকে হারানোর কথা আমরা অনেকেই শুনেছি। তবে এই গল্প একেবারে আলাদা। নিজের মায়ের কাছেই স্বামীকে হারাতে হল এক ব্রিটিশ মহিলা। এই ঘটনায় কোনওদিনও মাকে ক্ষমা করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন এই মহিলা।

দক্ষিণ-পশ্চিম লন্ডনের টুইকেনহমের বাসিন্দা লওরেন ওয়াল সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে নিজের জীবনের কাহিনী শেয়ার করেন। ৩৪ বছরের লওরেন জানান, বিমানবন্দরের কর্মী পল হোয়াইট-কে ভালবেসেই বিয়ে করেছিলেন তিনি। তখন লওরেনের বয়স ছিল মাত্র ১৯ বছর। 

মেয়ের বিয়েতে ১৫,০০০ ডলার খরচা করেছিলেন তাঁর মা জুলি। এখন যার বয়স ৫৩ বছর। মায়ের প্রতি কৃতজ্ঞ লওরেন তাঁকে নিয়েই মধুচন্দ্রিমায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। ডেভনে প্রায় দুই সপ্তাহ মেয়ে-জামাইয়ের সহ্গে সময় কাটান জুলি। এর নয় মাস পরেই সন্তানের জন্ম দেন তিনি।

লওরেনের কথা অনুযায়ী বিয়ের দুমাসের মধ্যে তাঁকে ছেড়ে চলে যান পল। সন্তান জন্মের পর তাঁরা যে একসঙ্গে রয়েছেন তা জানিয়ে দেন  জুলি ও পল।
 
মায়ের সঙ্গে পলকে বন্ধুর মত মিশতে দেখে প্রথমে সন্দেহ হয়নি। তাঁরা একসঙ্গে হাসত, গল্প করত। জানানা লওরেন। বিয়ের চার সপ্তাহ পরে মায়ের ফোনে দুজনের কথোপকথন দেখতে পায় লওরেনের বোন। এনিয়ে জুলিকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি তা এড়িয়ে যান। 

পলকে এবিষেয় প্রশ্ন করলে বিয়ের আংটি খুলে ফেলেন তিনি। লওরেন ও তাঁদের সাত মাসের কন্যা সন্তানকে ছেড়ে  চলে যান জুলির কাছে। "কোনও মা যে মেয়ের সঙ্গে এমন ঘটাতে পারে তা ভাবতেই অবাক লাগে।"  প্রতিক্রিয়া দিতে গয়ে বলেন লওরেন। 

অষ্টাদশী লওরেনের সঙ্গে প্রথম দেখা হয়েছিল পলের। দেখামাত্রই লওরেনকে প্রপোজ করেছিলেন পল। কয়েক মাস মেলামেশার পরেই অন্তস্বত্ত্বা হয়ে পড়েন তিনি। মেয়ের জন্ম হয় ২০০৪ সালের মার্চে। তারপরেই বিয়ে করেন দুজনে। এদিকে লওরেনের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের ৫ বছর পর জুলিকে বিয়ে করেন পল।