জি-৭ সম্মেলনে অংশ নিতে শনিবারই ফ্রান্সের বিয়ারিৎজ শহরে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবারের জি-৭ সম্মেলনে তাঁর কর্মসূচীর মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য হল বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা। সূত্রের খবর, এবারের সম্মেলনে কাশ্মীর ইস্য়ু নিয়েও হতে পারে জোর আলোচনা, সেইদিকেই তাকিয়ে রয়েছে আন্তর্জাতিক মহল। 

সেইসঙ্গে জি৭ সম্মেলনের পাশাপাশি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প-এর সঙ্গেও বৈঠকে বসতে পারেন বলে জানা গিয়েছে। তাঁদের আলোচনাতেও কাশ্মীর প্রসঙ্গই উঠে আসবে বলেও মনে করছে কূটনৈতিক মহল। ইতিমধ্যেই জি-৭ সম্মেলনের ফাঁকে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে আলোচনায় বসেছেন নরেন্দ্র মোদী। 


যদিও ভারত জি-৭-এর অন্তর্ভূক্ত দেশ নয়, তবুও ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল মাঁকর তাঁকে ব্যক্তিগতভাবে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানোর পরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যান এই সম্মেলনে যোগ দিতে। বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ে মত প্রকাশের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী এই সম্মেলনে পরিবেশ, জলবায়ু, ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন ইত্যাদি নান বিষয় নিয়ে কথা বলবেন বলে জানা গিয়েছে। 

মুর্খের রাজ্যে বাস করে আগুন নিয়ে খেলছে ভারত, কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে খোঁচা পাক রাষ্ট্রপতির

জি-৭ সামিটে যে যে সদস্য দেশগুলি  এই সম্মেলনে অংশ নিয়েছে সেগুলি হল, ব্রিটেন, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। প্রসঙ্গত জম্মু ও কাশ্মীরের ও পর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিলের পর ভারত ও পাকিস্তানের মধ্য়ে যে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে তা বর্তমানে আন্তর্জাতিক রাজনীতির এক জ্বলন্ত সমস্যা। এই সমস্যা নিয়েও একাধিক প্রসঙ্গ উঠে আসতে পারে বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহল।