জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্তের পর গঙ্গার বুক থেকে বয়ে গিয়েছে অনেক জল। কিন্তু তাও আন্তর্জাতিক মহলে জম্মু ও কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে নিজের পাল্লা ভারি করতে তৎপর পাকিস্তান। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বারংবারই ভারতের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন।

পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ, বালাকোট হামলার পরেই তৈরি ছিল ভারত

আর এবার জম্মু ও কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে খোঁচা দিলেন পাক রাষ্ট্রপতি আরিফ আলভি। এদিন তিনি বলেন, জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করে আগুন নিয়ে খেলছে ভারত। এই আগুনেই পুড়বে দেশের ধর্মনিরপেক্ষতা। শনিবার ইসলামাবাদে আমেরিকান-কানাডিয়ান সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে এমনটাই মন্তব্য করেন তিনি। 

উপকূলীয় সীমান্তে বিএসএফ-এর জালে দুটি পাক নৌকো, জারি তল্লাশি অভিযান

এখানেই থেমে থাকেননি আরিফ। এদিন তিনি বলেন, মুর্খের শহরে বসবাস করছে ভারত, আর ভাবছে যে, ৩৭০ ধারা বাতিল করে দিলেই সমস্ত সমস্যার সমাধান হবে। তিনি আরও বলেন যে, ভারত আদতে দেশের সংবিধানের পরিবর্তন ঘটিয়ে সন্ত্রাসবাদ-কে উৎসাহিত করছে, যার দায় কিন্তু পাকিস্তানের নয়। 

বাহরিনে ২০০ বছরের পুরনো কৃষ্ণ মন্দির! সংস্কার প্রকল্প শুরু করলেন নরেন্দ্র মোদী

তাঁর আরও দাবি, কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদের একাধিক প্রস্তাব উপেক্ষা করেছে ভারত। শুধু তাই নয়, বিরোধ নিস্পত্তির জন্য পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনার পথও প্রত্যাখ্যান করেছে ভারত, বলে দাবি তাঁর। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সুরে সুর টেনে তিনি বলেন, কাশ্মীর ইস্যুটি যেভাবে আন্তর্জাতিক মহলে তুলে ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে সেই প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।