ফের পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সম্পর্কে উত্তেজনা। আফগান সীমান্ত লাগোয়া পাকিস্তানি ভূখণ্ডে এসে পড়ছে একের পর এক মর্টার বোম ও শেল।এই অভিযোগ তুলে আফগানিস্তানের সঙ্গে মূল সীমান্ত বন্ধ করে দিল পাক প্রশাসন।

তোরখাম সীমান্ত দিয়েই দুই দেশের মধ্যে প্রধান ব্যবসা-বাণিজ্য চলে। প্রতি সপ্তাহে  খাইবার পাসের এই পথ ধরেই যাতায়াত করে পণ্য বোঝাই হাজার হাজার  গাড়ি ও ট্রাক। কিন্তু মর্টার হামলার পর সেই পথ বন্ধ করে দিয়েছে পাকিস্তান। ফেল মাঝপথে আটকে রয়েছে বহু গাড়ি ও ট্রাক।

 


 

পাকিস্তানের এক কর্তা জানান, " আফগান সীমান্ত দিয়ে ছোঁড়া মর্টারগুলি এসে পড়ে পাকিস্তানের মাটিতে। যার ফলে বেশ কয়েকটি গাড়ির ক্ষতি হয়েছে।" গত বছর সেপ্টেম্বরেই দুই দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে ২৪ ঘণ্টা এই সীমান্ত পথ খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পাক প্রশাসন। 

আরও পড়ুন: বাড়তে চলেছে গর্ভপাতের উর্দ্ধসীমা, বাজেট অধিবেশনেই পেশ হতে চলেছে বিল

দীর্ঘদিন ধরেই আফগানিস্তান পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তালিবানদের সাহায্য করার অভিযোগ তুলে আসছে। যদিও তা অস্বীকার করে এসেছে পাকিস্তান। উল্টে  পাক সরকারের বিরোধীতায় আফগান প্রশাসন মদত যোগাচ্ছে বলে তাদের অভিযোগ। দুই দেশের সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় মাঝে মধ্যেই গোলা-গুলির আওয়াজ পাওয়া যায়। যদিও মর্টার হামলার কথা মানতে চায়নি আফগানিস্তান প্রশাসন। উল্টে পাক বাহিনী পাল্টা মর্টার হামলা চালিয়েছে বলে দাবি আফগানিস্তানের নানগারহার প্রদেশের সরকারি মুখপাত্র আতাউল্লা খগওয়ানির।

আরও পড়েছে: বসন্ত পঞ্চমীতে ঘোষণা হল দিন, ৩০ এপ্রিল ফের খুলছে বদ্রিনাথের দরজা

"যখন তোরখাম সীমান্ত বন্ধ রাখার ইচ্ছে হয় পাকিস্তান এই খেলাটাই খেলে থাকে।" পাল্টা দাবি করেছেন খগওয়ানি। 

চলতি সপ্তাহে  পাকিস্তানে এক পাস্তুন মানবাধিকার কর্মীকে গ্রেফতারির নিন্দা করেছিলেন আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানি। বিষয়টি একেবারেই ভাল চোখে নেয়নি ইমরান সরকার। এই অবস্থায় দুই দেশের মধ্যে সীমান্ত বাণিজ্য কতদিন বন্ধ থাকবে তার উত্তর জানা নেই দুই তরফে আটকে পড়া গাড়ি চালকদের।