করোনাভাইরাস বিশ্বে মহামারীর পরিস্থিতি তৈরি করেছে। যার জন্য এবার ইদের নামাদ পড়তে হয়েছে বাড়িতেই। এবার হজের ক্ষেত্রেও আরোপ হল বিধিনিষেধ। অন্যান্য বছর ২৫ লাখেরও বেশি মুসলিম ধর্মাবলম্বী  মানুষ হজের সময় মক্কায় আসেন। কিন্তু এবছর সেটা সম্ভব নয়। তাই চলতি বছর হজের জন্য সৌদিতে বসবাসরত বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এক হাজার জনকে অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব প্রশাসন।

এবারের হজ শুরু হবে ২৯ জুলাই। করোনাভাইরাসের কারণে মাত্র এক হাজার মানুষ হজ করার সুযোগ পাচ্ছেন বলে জানা গেছে। তবে বেশ কিছু গণমাধ্যম দাবি করেছে যে এবারের হজে অংশ নিচ্ছেন ১০ হাজার মানুষ। শুধু মাত্র সৌদিতে বসবাসকারীরাই এবারের হজ পালন করতে পারবেন। সৌদির বাইরের কোনো দেশ থেকেই এবছর  হজে কেউ অংশ নিতে পারছেন না।

আরও পড়ুন: অতিমারীর বিশ্বে অবশেষে এল সুখবর, করোনা ঠেকাতে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন পুরোপুরি নিরাপদ

সৌদি আরবের হজ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পবিত্র নগরী মক্কায় প্রবেশের আগে এবং হজের পর সবাইকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। হজের প্রথম ধাপে ৭ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে অংশগ্রহণকারীদের। এরই মধ্যে তারা কোয়ারেন্টাইন শুরু করেছেন। তারপর শুরু হবে মূল পর্ব।

এবারের হজের নিয়মে বলা হয়েছে, সাত দিনের কোয়ারেন্টাইন শেষে মক্কায় এসে আরও চার দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে হজ যাত্রীদের। সৌদি আরবের হজ মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে নিবন্ধিত হজযাত্রীদের প্রয়োজনীয় সামগ্রী পাঠিয়েছে। এসব সামগ্রীর বাইরে অন্য কিছু বহন করতে পারবে না হজযাত্রীরা।  যাতায়াতের জন্য প্রতি ২০ জন করে একটি দল করা হয়েছে। প্রত্যেক বাসে এক দল করে হজযাত্রী উঠতে পারবেন।

আরও পড়ুন: সর্বশেষ গবেষণায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য, ৬ রকমের করোনাভাইরাসের অস্তিত্বের কথা বললেন বিজ্ঞানীরা

বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন বাড়তে থাকায় গত মাসেই সৌদি সরকার জানিয়ে দেয় খুব সীমিত আকারে হজ অনুষ্ঠিত হবে।  হজ এবং উমরাহ থেকে সৌদি সরকার প্রতি বছর ১২ বিলিয়ন ডলার আয় করে থাকে।