কথায় আছে পুরনো চাল ভাতে বাড়ে। তবে পুরনো স্যুপ যে স্বাদে বাড়ে এটা বোধহয় এই প্রথম শুনলেন। জেনে অবাক লাগলেও ঘটানাটি একেবারেই সত্যি। ৪৫ বছর ধরে একই পাত্রে রান্না হতে থাকা এই স্যুপের স্বাদ চেখে দেখতে হলে আপনাকে যেতে হবে ব্যাংককে। ব্যাংককের ওয়াত্তানা পানিচ নামের এই রেস্তোরাঁয় নিয়মিত তৈরি হয়ে চলেছে জনপ্রিয় এই বিফ ন্যুডুলস স্যুপ। 
মাংস, মিটবল নানান সবজি ও বিশেষ এক ধরণের মশলার সহযোগে তৈরি করা হয়  'নিউয়া টিউন' নামের জনপ্রিয় এই স্যুপ। জানা গিয়েছে প্রতিদিনের অবশিষ্ট স্যুপের সঙ্গে মিশিয়েই পরের দিনের স্যুপ তৈরি করা হয়। আর তাতেই নাকি বৃদ্ধি পায় এই স্যুপের স্বাদ। টানা ৪৫ বছর ধরে ব্যাংককের এই পরিবার দ্বারা পরিচালিত এই ওয়াত্তানা পানিচ রেস্তোরাঁ শুধুমাত্র এই নিউয়া টিউন স্যুপের জন্যই বিখ্যাত। এই স্যুপের এমন স্বাদ তা এলাকা ছেড়ে জনপ্রিয় হয়েছে গোটা ব্যাংককে।
নাট্টাপং কৌওয়েনানতাওয়ং নামের এক যুবক তাঁর মা ও স্ত্রীর সহযোগীতায় এই রেস্তোরাঁ চালায়। নাট্টাপং জানিয়েছেন প্রতিদিন তাঁর মা ও স্ত্রী দুজনে মিলেমিশেই এই স্যুপ তৈরি করেন। ৪৫ বছর ধরে একদিনের জন্য়ও এই স্যুপের অবশিষ্ট অংশ ফেলা হয়নি। প্রতিদিনের স্যুপের অবশিষ্ট অংশ দিয়েই রান্না হয় পরের দিনের স্যুপ। নাট্টাপং আরও জানিয়েছেন আজকের দিন তাঁর রেস্তোরাঁর স্যুপ এতটাই জনপ্রিয় যে দেশের বাইরের থেকেও পর্য্যটকরা ব্যাংককে আসেন এই স্যুপ চেখে দেখতে। এরপর তারা নিজেরাই তাদের অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এইভাবেই আজ বিশ্বজুড়ে বিখ্যাত হয়েছে ওয়াত্তানা পানিচ রেস্তোরাঁর নিউয়া টিউন স্যুপ।