বুধবার গভীর রাতে হাজার হাজার ডোনাল্ড ট্রাম্প সমর্থক হামলা চালায় মার্কিন সংসদ ভবন ক্যাপিটল-এ। চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা চলে ঘন্টা চারেক ধরে। দাঙ্গাকারীদের দেখা যায় ক্যাপিটল ভবনের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াতে, ট্রাম্পের অন্যতম সমালোচক, হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির কার্যালয়ে ভাঙচুর চালাতে। ওই ঘটনায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্য়ু হয়েছে চারজনের।  তবে এসবরে মাঝে ভারতীয়দের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে অন্য একটি ঘটনা। হাজার হাজার মার্কিন পতাকা, ট্রাম্পের সমর্থনে পোস্টার-এর মধ্যে ছিল একটি ভারতীয় তেরঙ্গা পতাকাও।  

ক্য়াপিটলে গাঙ্গা হাঙ্গামার যেসব ভিডিও প্রকাস্যে এসেছে তার মধ্যে একটিতে ধরা পড়েছে ওই ভারতীয় পতাকা। ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ওই ব্যক্তি কে, কী তার পরিচয়, ট্রাম্প সমর্থকদের মধ্যে তিনি কী করছেন, কিছুই জানা যায়নি। ট্রাম্পের সমর্থকদের মধ্যে তিনি ভারতীয় পকতাকা নিয়েই বা কী করছেন তাও বোধগম্য হয়নি কারোর। দেশী সোশ্য়াল মিডিয়া এই অবস্থায় তার পরিচয় সন্ধান করছে।  

বিজেপি নেতা বরুণ গান্ধীরও নজর এড়ায়নি ওই ভারতীয় পতাকা। তিনি ওি ভিডিওটি টুইট করে কেন সেখানে ভারতীয় পতাকা ওড়ানো হচ্ছে সেই প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেন, 'এটা এমন একটা লড়াই যেখানে আমাদের (ভারতীয়দের) অংশগ্রহণের কোনও দরকার নেই'।

পতাকাধারী ওই ব্যক্তির সমালোচনা করেছেন শিবসেনা সাংসদ প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদীও। টুইট করে তিনি বলেন, ভারতীয় পতাকা নিয়ে ওই দাঙ্গা হাঙ্গামায় অংশ নেওয়া ব্যক্তির লজ্জা বোধ করা উচিত। অন্য এক দেশে দেশে এই ধরনের হিংসাত্মক ও অপরাধমূলক কর্মসূচিতে অংশ নেওয়ার সময় ভারতীয় তিরঙ্গা ব্যবহার না করালর বিষয়ে সতর্ক করেন তিনি।

কৌতুক অভিনেতা বীর দাস আবার মজা করে বলেছেন, কোথাও অনেক লোক জমেছে দেখলেই, ক্রিকেট ম্যাচ হচ্ছে ভাবার কোনও কারণ নেই।

শুধু রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বা সেলিব্রিটিরাই নন, সাধারণ নেটিজেনদের মধ্যেও ট্রাম্প সমর্থকদের দাঙ্গায় এই ভারতীয পতাকার উপস্থিতি হইচই ফেলেছে। কেউ ওই ব্যক্তিকে  দেশি ট্রাম্প সমর্থক বলেছেন। কেউ বলেছেন, এরপর আমেরিকা বলবে ভারত তাদের অভ্যন্তরীন বিষয়ে নাক গলাচ্ছে। ট্রাম্পের মিছিলে ভারতীয় জাতীয়তাবাদীরা কেন, সেই প্রশ্নও তুলেছেন অনেকে। কিন্তু, ওি ব্যক্তির পরিচয় এখনও রহস্যই রয়ে গিয়েছে।