গত বছর ডিসেম্বর থেকে করোনা সংক্রমনে কাবু চিন। মৃতের সংখ্যা তিন হাজারের গণ্ডী পেরিয়ে গিয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে প্রায় নব্বই হাজারে। চিনের উহান থেকেই এই মারণ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে দাবি করছে বিশ্ব। এরমধ্যেই উল্টোসুর গাইতে শুরু করে চিনের সংবাদমাধ্যম ও সরকার। চিনে করোনার এপিসেন্টার উহানে নাকি এই মারণ ভাইরাস ছড়িয়েছে মার্কিন সেনাবাহিনী। এমন চাঞ্চল্যকর  দাবি করা হয়েছে চিনের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত কানাডিয়ান প্রধানমন্ত্রীর স্ত্রী, হ্যান্ডশেক ছেড়ে 'নমস্কার' করছেন ট্রাম্প

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস চিনে ছড়িয়ে পড়ার পিছনে আমেরিকার হাত থাকতে পারে, এমন সম্ভাবনার কথা প্রকাশ করে ট্যুইট করেছেন চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান। তিনি লেখেন,"মার্কিন সেনাদের থেকেই করোনাভাইরাস উহানে ছড়িয়ে পড়েছিল। সেখান থেকে তা ছড়িয়ে পড়ে চিনের মূল ভূখণ্ডে।  ঝাওয়ের দাবি, গত বছর অক্টোবরে উহানে অনুষ্ঠিত সপ্তম মিলিটারি ওয়ার্ল্ড গেমে যোগ দিয়েছিল আমেরিকার অন্তত ৩০০ সেনা অ্যাথলেট। তাঁদের মধ্যে অনেকে ফ্লু-তে আক্রান্ত ছিলেন। পরে কয়েকজনের মৃত্যুও হয়। তখন নিছক জ্বর বা সংক্রামক ব্যধিতে সেনাদের মৃত্যু হয়েছিল বলা হয়। পরে জানা যা, তাঁর সকলেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন।

 

 

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস চিনে ছড়িয়ে পড়ার পিছনে আমেরিকার হাত রয়েছে বলে এর আগেও সেদেশের সোস্যাল মিডিয়ায় জল্পনা চলেছিল।  এবার সেই সম্ভাবনার কথায় মিলল সরকারি স্বাীকৃতিও। ট্যুইটবার্তায় ঝাও লিজিয়ান বলেন, যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের নিয়ে স্বচ্ছতা দেখাতে ব্যর্থ হয়েছে। তারা এই সংক্রান্ত তথ্য গোপন করছে। 

 

 

যদিও বিশেষজ্ঞমহল বলছে, আমেরিকার বিরুদ্ধে এই চাঞ্চল্যকর দাবির স্বপক্ষে তেমন কোনও প্রমাণ পেশ করতে পারেনি চিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রক। এর আগে দেশটির সেন্টার ফর ডিজিজ কনট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের প্রধান জানিয়েছিলেন, উহানে বন্য পশুর বাজার থেকেই করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে। 

আরও পড়ুন: বেঙ্গালুরুতে এবার করোনায় আক্রান্ত গুগল কর্মী, দেশে ক্রমেই বাড়ছে আতঙ্ক

এদিকে চিনের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের এই অভিযোগের পরই হইচই শুরু হয়ে গিয়েছে। মার্কিন সেন্টার ফর স্টাডিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন-এর ডিরেক্টর রবার্ট রেডফিল্ড স্বীকার করেছেন, আমেরিকার সেনাদের রক্তে মারণ ভাইরাসের জীবাণু মিলেছিল। তবে তাঁদের থেকেই এই ভাইরাস উহানে ছড়ায় এটা ঠিক নয়। 

এদিকে সিডিসি মার্কিন সেনার করোনাভাইরাসের তথ্যে শিলমোহর দিতেই  চিনের বিদেশমন্ত্রকর মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান সেই ভিডিও চিনের সমস্ত ওয়েবসাইটে আপলোড করার নির্দেশ দেন। সঙ্গে লেখেন, "“আমরা আশা করি যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন কর্মকর্তা এই সময়ে ভাইরাসটি নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে এবং সহযোগিতা বাড়াতে মনোনিবেশ করবেন এবং চিনের দিকে দোষারোপ করবেন না।"