দীর্ঘ টালবাহানর পর মিলল ছাড়পত্র। মহামারির উৎস সন্ধানে চিনে পৌঁছে গেল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি দল। আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদলের ১০ সদস্যকে করোনাভাইরাসের তথ্য অনুসন্ধানের জন্য ছাড়পত্র দিয়েছে বেজিং। ২০২০ সালে ডিসেম্বর মাসেই আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদলের প্রতিনিধিদের চিনে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেই বেজিং-এর গাফিলতিতে তা সম্ভব হয়নি। যা নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছিবেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানও। অন্যদিকে নতুন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে চিনে। মৃত্যুও হয়েছে এক জনের।  

এই দফায় আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদলের প্রধান গন্তব্য হল হুবেই প্রদেশ। বিশ্বের অধিকাংশ মানুষই দাবি করেছেন হুবেই প্রদেশের কুখ্যাত ওয়েট মার্কেট থেকে ছড়িয়ে পড়েছিল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। অনেকেই অবশ্য দাবি করে উহানের পরীক্ষাগার থেকেই চড়িয়ে পড়েছিল করোনার জীবাণু। মহামারির উৎসন্ধানেই দলটি চিন সফর করছে। বিশেষজ্ঞ দলের কথায়, এই তথ্য অনুসন্ধান করা খুব একটা সহজ কথা নয়। এক বিশেষজ্ঞের কথায় তাঁদের এই সফরের উদ্দেশ্য কোনও দেশকে কাঠগড়ায় খাড়া করা নয়। তাঁদের মূল উদ্দেশ্যেই হল কী হয়েছিল- তা খুঁজে বার করা। তারপর সেই তথ্য বিশ্লেষণ করা। ভবিষ্যতের বিপদ কাটিয়ে ওঠা। ইতিমধ্য়েই তথ্য অনুসন্ধানের কারণে উহানেও পৌঁছে গেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি দল। 

বিদায়বেলায় 'কলঙ্কিত' ট্রাম্প দিলেন ঐক্যবদ্ধ থাকার বার্তা, ইমপিচে সায় রিপাবলিকানদ

Civid-19 টিকা Live: তিন লক্ষ স্বাস্থ্যকর্মী প্রথম করোনা-টিকা নেবেন, টিকা চেয়েছে ব্রাজিল

২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাস থেকেই করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করছে চিন। সংক্রমণ রুখতে বেশ কয়েকদফা লকডাউনও জারি করা হয়েছিল সেদেশে। গত ৮ মাস পর এই প্রথম আবারও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা নথিভুক্ত হয়েছে বৃহস্পতিবার। নতুন প্রজাতির করোনা জীবাণু থেকেই সংক্রমণ ছড়াচ্ছে বলে জানিয়ে সেদেশের প্রশাসন। সংক্রমণ রুখতে নতুন করে জারি করা হয়েচে লকডাউন। দেশের প্রা ২০ কোটিরও মানুষ রয়েছেন লকডাউনের আওতায়। বৃহস্পতিবার ১৩৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলেও জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক।