কানাডায় ভারতীয় ছাত্রের নির্মম মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ পরিবার, প্রশ্ন বিদেশে ভারতীয় ছাত্রদের নিরাপত্তা নিয়ে

| Nov 27 2022, 10:45 PM IST

Death

সংক্ষিপ্ত

সাইকেল চড়তে গিয়ে পিক আপ ট্রাকের ধাক্কায় পিষে গেলো ২০ বছর বয়সী ভারতীয় ছাত্র কার্তিক সাইনি। কানাডার এই ঘটনায় শোকস্তব্ধ কার্তিকের পরিবার

দেশের বাইরে কতটা সুরক্ষিত ভারতীয় ছাত্ররা ? এনিয়ে বিতর্ক উঠেছিল অনেক আগে থেকেই। একটা সময় ছিল যখন প্রায় প্রত্যহ আমরা দেশের বাইরে পড়তে যাওয়া ভারতীয় ছাত্রদের মৃত্যুর খবর শুনতে পেতাম । এমনকি যেসমস্ত দেশে ভারতীয় ছাত্রদের বেঘোরে প্রাণ দিতে হচ্ছিলো সেই দেশগুলির সঙ্গে জরুরিকালীন বৈঠক করতেও দেখা যায় ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রককে ।এই বৈঠকে স্পষ্ট হয় যে শুধু সঠিক ভিসা এবং প্রয়োজনীয় তথ্যই, বিদেশ বিঁভূইয়ে ভারতীয় ছাত্রদের সুরক্ষিত থাকার একমাত্র চাবিকাঠি নয়।সঠিক তথ্যপ্রমাণ সঙ্গে থাকলেও দুর্ঘটনার কবলে পড়তে পারে যেকেউ। এমনই এক মর্মান্তিক ঘটনার ফের পুনরাবৃত্তি দেখা গেলো কানাডায়।

কানাডার শেরিডন কলেজে পড়তে গেছিলো হরিয়ানার কার্তিক। ২০২১ সালে আগস্টে বিদেশ পারি দেবার পর থেকে আর বাড়ি ফেরেননি তিনি। কিন্তু বাড়ি না এলেও বাবা মা ও পরিবারের লোকজনের সঙ্গে নিয়মিত টেলিফোনে যোগাযোগ রাখতেন কার্তিক। বেশ ভালোই কাটছিলো তার নতুন নতুন প্রবাসজীবন। কিন্তু প্রমাদ ঘটলো সাইক্লিস্ট হবার স্বপ্ন দেখে। সাইকেল চড়তে গিয়ে পিক আপ ট্রাকের ধাক্কায় পিষে গেলো ২০ বছর বয়সী এই তরুণ। নিহতের খুড়তুতো ভাই পারভীন সাইনির কাছে ঘটনার খবর পৌঁছতেই কান্নায় ভেঙে পড়ে কার্তিকের পরিবারের সদস্যরা।

Subscribe to get breaking news alerts

জানা যায় এই দুর্ঘটনার পর এক জরুরি পরিষেবা এসে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছিল। কিন্তু শেষরক্ষা হলো না আর। প্রাথমিকভাবে কার্তিকের পরিচয় নিয়ে জলঘোলা হলেও পরে শেরিডান কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের কলেজের ছাত্র হিসেবে কার্তিককে স্বীকৃতি দেওয়ায় কার্তিকের পরিচয় নিয়ে নিশ্চিত হয় পুলিশ।শেরিডন কলেজ কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যেই শোকপ্রকাশ করে বলে ,'কার্তিকের আকস্মিক মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত।আমরা তার পরিবার, বন্ধুবান্ধব, সহকর্মী এবং অধ্যাপকদের প্রতি আমাদের আন্তরিক সমবেদনা জানাচ্ছি।'

কার্তিকের খুড়তুতো ভাই পারভীন সাইনি হরিয়ানার কর্নাল থেকে কথা বলেছেন কানাডা পুলিশের সঙ্গে।এবং তারা আশা করছেন কার্তিকের শেষকৃত্যের জন্য তার মৃতদেহ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভারতে পাঠানোর ব্যবস্থা করবে কানাডা সরকার।

অবশ্য কানাডা পুলিশ সূত্রে খবর যে বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ইয়ং স্ট্রিট এবং সেন্ট ক্লেয়ার অ্যাভিনিউয়ের সংযোগস্থলে এই মারাত্মক সংঘর্ষের পর এখন পুরোদমে এই ঘটনার তদন্ত করছেন তারা। তদন্ত শেষ না হাওয়া পর্যন্ত মৃতদেহ আপাতত তাদের কাছেই থাকবে বলে জানিয়েছেন তারা।

আরও পড়ুন-

বিজেপি সাংসদ প্রতাপ সিমহার হুমকি, কর্ণাটকের মাইশুরু বাসস্ট্যান্ড থেকে উধাও হয়ে গেলো মুসলিম স্থাপত্যের আদলে তৈরি গম্বুজ

শি-র পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল চিন, ক্ষোভের আগুনে স্ফুলিঙ্গ উরুমকির আগুনে ১০ জনের মৃত্যু

সভা চলাকালীনই আচমকা বেগুনি হয়ে গেল রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের হাত! কি হল ভ্লাদিমির পুতিনের