কড়া নাড়ছে বিশ্বকাপ ২০১৯। প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে বাংলাদেশের দল। বাকি শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। তাঁর আগে সাকিব আল হাসান বাংলাদেশে ফেরত আসুক চাইছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

আইপিএল ২০১৯ এ সাকিব খেলছেন হায়দরাবাদ সানরাইজার্সের হয়ে। কিন্তু প্রথম একাদশে নেই তাঁর নাম। ফলে সাইড বেঞ্চে সময় কাটাতে হচ্ছে তাঁকে। এই বিষয়টাই ভাল চোখে দেখছে না বিসিবি। বিসিবি কর্তাদের দাবি, চোট আঘাতের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন সাকিব। দলের হয়ে নিউজিল্যান্ড সফরেও যেতে পারেননি তিনি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড তাঁকে আইপিএল ছাড়পত্র দিয়েছিল ম্যাচ প্র্যাকটিসের কথা ভেবে। তাই যখন হচ্ছে না তখন তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনাই শ্রেয় মনে করছে ।

শনিবার হোটেল সোনারগাঁওয়ে বিএসপিএ-এর স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে বর্ষসেরা সংগঠকের মর্যাদা দেওয়া হয় বিসিবি সভাপতি নাজমুল পাপনকে। পুরস্কার বিতরণীমঞ্চ থেকেই পাপন বলেন, "আমরা সাকিবকে টি২০ ফরম্যাটে খেলতে দিতে রাজি ছিলাম না। ওঁকে ছাড়পত্র দেওয়া হয় ম্যাচ প্র্যাকটিসের কথা ভেবে। এখন সে যদি খেলতেই না পায়, তবে তাঁকে দেশের বাইরে রেখে কী লাভ। জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু হলেই তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।"

এই আইপিএল এক ম্যাচ খেলেই বাদ পড়েন বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার। আইপিএল এর নিয়ম অনুসারে, একটি টিম সর্বাধিক চারজন বিদেশি ক্রিকেটারকে খেলাতে পারেব। এই কারণেই সাকিবকে সাইড বেঞ্চে শুকনো মুখে কাটাতে হচ্ছে। প্রসঙ্গত ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিল শীর্ষে দুই নম্বরে রয়েছে সাকিবের হায়দরাবাদ।