•  কাল টসে জিতছিলেন বিরাট কোহলি, আর জেতার পর ব্যাঙ্গালোর প্রথমে ব্যাট করতে নামছে সেই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন তিনি। টসে জিতে ম্যাচ জেতা এই আইপিএলের বিরল ঘটনাগুলির মধ্যে একটি, সেটাই কাল করে দেখালেন ডিভিলিয়ার্সরা। 
  •  পাওয়ার প্লে তে দুর্দান্ত ব্যাটিং বেঙ্গালুরুর দুই ওপেনারের। প্রায় ৮ ওভার খেলে ৬৭ রান করেন তারা। তারপর আন্দ্রে রাসেলের বলে আউট হন দেবদূত পাড়িক্কল। ২৩ বলে ৩২ রান করেন তিনি। ৩৭ বলে ৪৭ রান করে প্রসিদ্ধ কৃষ্ণণের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন অ্যারন ফিঞ্চ।
  • মন্থর ইনিংস খেলে গেলেন কোহলি। আগের ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করার পর কাল ২৮ বলে মাত্র ৩৩ রান করেছেন তিনি। গোটা ইনিংসে মাত্র একটি বাউন্ডারি মারতে পেরেছেন তিনি। 
  • ব্যাট হাতে দুর্দান্ত ছন্দে দেখা গেল এ বি ডিভিলিয়ার্সকে। আগের ম্যাচে ০ করার পর এই ম্যাচে ৩৩ বলে ৭৩ রানের মারাত্মক ইনিংস খেলেন তিনি। একসময় থমকে পড়া ব্যাঙ্গালোরের ইনিংসকে তিনিই একক দক্ষতায় পৌঁছে দেন ২০০এর কাছাকাছি। অর্ধশতরান করেন মাত্র ২৩ বলে। 
  • বরুণ চক্রবর্তী ছাড়া কাল গোটা কেকেআর বোলিং ইউনিটকে অত্যন্ত সাদামাটা দেখিয়েছে। কামিন্স, রাসেল, নাগরকোটি প্রত্যেকেই এ বি ডিভিলিয়ার্স নামক ঝড়ের সামনে খড়কুটোর মত উড়ে গিয়েছেন। সেখানে চক্রবর্তী ৪ ওভারে দেন মাত্র ২৫ রান। 
  • রান তাড়া করতে নেমে শুভমান গিল ছাড়া ব্যর্থ কেকেআর টপ অর্ডার। ১২ বলে ৮ রান করে নবদীপ সাইনির বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন টম ব্যান্টন। ১৪ বল খেলে মাত্র ৯ রানে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে আউট হয়ে ফেরেন তিন নম্বরে আসা নীতিশ রানা। 
  • টপ অর্ডারের পড়ে মুখ থুবড়ে পড়ে কেকেআর মিডল অর্ডার। ৮ রান করে ওয়াশিংটন সুন্দরের শিকার হয়ে ফেরেন মরগ্যান। ১ রান করে চাহালের বলে ফেরেন কার্তিক। মারতে শুরু করলেও ১০ বলে ১৬ রান করে উদানার বলে আউট হয়ে ফেরেন আন্দ্রে রাসেল। ২২ বলে ১৬ রান করেন রাহুল ত্রিপাঠি। 
  • কেকেআর ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একা লড়ছিলেন শুভমান গিল। কিন্তু ভাগ্য তার সহায় হয়নি। অপ্রয়োজনীয় রান নিতে গিয়ে ওদানার দুর্দান্ত থ্রোয়ের দৌলতে রান আউট হয়ে ফেরেন গিল। ২৫ বলে ৩৪ করেছিলেন তিনি। 
  • আরসিবির হয়ে বোলিং করা প্রত্যেক বোলার কাল উইকেট পেয়েছেন। মোট ছয়জন বোলার ব্যবহার করেছিলেন কোহলি। এর মধ্যে ওয়াশিংটন সুন্দর আর ক্রিস মরিস ২ টি করে উইকেট নেন। শেষপর্যন্ত ৮২ রানের বিশাল ব্যবধানে যেতে বিরাটরা। 
  • ৭ ম্যাচে ৫ টি জিতে ১০ পয়েন্ট পেয়েছেন বিরাটের ব্যাঙ্গালোর। কিন্তু নেট রানরেটে অনেকটাই পিছিয়ে থাকায় তিন নম্বরে রইলেন তারা মুম্বই ও দিল্লির পেছনে। কলকাতা রইলো ৪ নম্বরে। কিন্তু তাদের রানরেটের অবস্থা শোচনীয়।