শনিবারের দুই ম্যাচের পর আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠলো আইপিএলের পয়েন্ট টেবিলের চেহারা। আপাতত টেবিলের যা চেহারা দাঁড়িয়েছে তাতে বিন্যাস ও সমবায়ের অঙ্কে ক্রিকেটপ্রেমীদের বাকি দুটি দিন কাটাতে হবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

গতকালের প্রথম ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালসকে ৯ উইকেটে দুরমুশ করে প্লে অফের লড়াইয়ে নতুন সমীকরণ তৈরি করে দিয়েছিল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। দ্বিতীয় ম্যাচে বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্লে অফের অঙ্ক আরও জমিয়ে দিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। শনিবার প্রথমে ব্যাট করে বিরাট কোহলিরা আটকে গেলেন মাত্র ১২০ রানে। ওপেনারজশ ফিলিপ ৩১ বলে ৩২ রান করলেও গোটা টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা দেবদূত এদিন ব্যার্থ হন, এ বি ডিভিলিয়ার্স এর ২৪ ও ওয়াশিংটন সুন্দরের ২১ রান ছাড়া চূড়ান্ত ব্যর্থ গোটা ব্যাটিং লাইন আপ। হায়দরাবাদ বোলারদের মধ্যে সেরা সন্দীপ শর্মা। ৪ ওভারে মাত্র ২০ রান দিয়ে কোহলি-সহ ২ উইকেট তাঁর। ভয়ংকর হয়ে ওঠার আগেই ডিভিলিয়ার্সকে ফিরিয়ে দেন শাহবাজ নাদিম। 

কম রান তাড়া করতে নেমে ফের ব্যাট হাতে সফল ঋদ্ধিমান সাহা। দলের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারের দ্রুত প্যাভিলিয়নে ফেরার ধাক্কা সামলে কঠিন পিচে ৩২ বলে ৩৯ রান করেন বাংলার ক্রিকেটার। যার মধ্যে মহম্মদ সিরাজকে হুক করে মারা একটি ছয় স্টেডিয়ামের বাইরে চলে যায়। ৪ টি দৃষ্টিনন্দন বাউন্ডারিও মারেন ঋদ্ধি। কিন্তু শেষপর্যন্ত যজুবেন্দ্র চাহলের বুদ্ধিদীপ্ত লেগস্পিনে পরাস্ত হয়ে ফেরেন তিনি। ১৯ বলে ২৬ রান করে ঋদ্ধিকে সহায়তা করেন মণীশ পাণ্ডে। শেষ দিকে মারাকাটারী ইনিংস খেলে ১০ বলে ২৬ রানে অপরাজিত থাকেন জেসন হোল্ডার। ৩৫ বল বাকি থাকতে ম্যাচ জেতে হায়দরাবাদ। পর পর দুটি বড় ব্যবধানে জয় তাদের রানরেটকে নিয়ে গেল খুব ভালো জায়গায়। পরের ম্যাচে মুম্বইকে হারালেই প্লে অফ নিশ্চিত কমলা শিবিরের।